নাসির-তামিমা আত্মগোপনে!

   
প্রকাশিত: ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

নাসির হোসেন, অনেকের কাছে বাংলাদেশের ক্রিকেটের হার্ডহিটার বা দুর্দান্ত বোলার কাম ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত হলেও তার চেয়েও বেশি পরিচিত বেডবয় হিসেবে। নানা বিতর্ক আর প্রেম ঘটিত কর্মকান্ডের জন্য নাসির হোসেন প্রায় সময় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন। সবশেষটায় বিশ্ব ভালবাসা দিবসে বিমানবালা তামিমা তান্নিকে বিয়ে করে আবারও আলোচনার জন্ম দিয়েছেন।

তবে বিয়ের পর থেকেই লোকচক্ষুর আড়ালে রয়েছেন বিতর্কিত এই ক্রিকেটার। একটি সুত্র বলছে, উত্তরা পশ্চিম থানায় তামিমার স্বামী রাকিব গত ১৮/২/২১ তারিখ জিডি করেন। এরপর থেকেই নাসির এবং তার নববিবাহিত স্ত্রী তামিমা তান্নি ওরফে শবনম মধুচন্দ্রিমার নামে মুলত আত্মগোপনে চলে গেছেন।

তামিমা তাম্মি এবং নাসিরের মোবাইল ফোনে দফায় দফায় যোগাযোগের চেষ্টা করেও বন্ধ পাওয়া গেছে। গত দুই দিনে উত্তরায় তামিমার বাসায় সরেজমিন খোঁজ নিতে গেলে (বিয়ের পর যেখানে উঠেছিলেন) তামিমার ছোট ভাই অভি জানিয়েছেন, দুজন-ই বাইরে আছেন, বিকালে বাসায় ফিরবেন। বিকালে গড়িয়ে সন্ধ্যা কিংবা পরদিনেও তারা আর বাসায় ফিরে আসেননি। এমনকি ছোট ভাই অভিও ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে রাকিব জানিয়েছেন, তিনি আইনী পদক্ষেপের বাইরে বিকল্প কিছু ভাবছেননা। একমাত্র সন্তানের মুখে দিকে তাকিয়ে হলেও তামিমার এমন কাজ করা ঠিক হয়নি। এর আগেও তামিমা নানা সময়ে নানা ছলচাতুরি করেছেন। প্রবাসী এক ছেলের সাথে প্রেমে জড়িয়েছেন। যা যেনেও মাফ করে দিয়েছিলেন। ওর মা’র কারনে সব অপকর্ম করে বেরিয়েছে। অর্থলোভী সুমি আক্তার-ই হচ্ছেন সব নষ্টের মুল।

রাকিবের দেয়া নিকাহনামার কাগজ বলছে, ১২/১০/১০ তারিখে তামিমা রাকিব নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে কাগজপত্রে সম্পর্কে জড়ান। পরবর্তীতে ২৬/২/২০১১ তারিখে তিন লাখ টাকা দেনমোহরে দুজনের মধ্যে বিয়ে সম্পন্ন হয়। সেই বিয়ের কাজী ছিলেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাজী মনিরুজ্জামান। স্বামী-স্ত্রী দুজনের উপস্থিতিতে স্বাক্ষী ছিলেন কাজী মাসুদ ও নুরুল ইসলাম। যাতে ওসুল দেখানো হয় তিন হাজার টাকা।

এদিকে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশের একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিষয়টি আদালতের। যেহেতু জিডি হয়েছে-তাই অভিযোগটি তদন্তের জন্য পুলিশ আদালতের শরনাপন্ন হয়েছে। আদালতের অনুমতি পেলে তারা তদন্ত কার্যক্রম শুরু করবেন। সূত্র: চ্যানেল ২৪।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: