প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মওদুদ আহমেদ

আক্কেলপুর প্রতিনিধি

আবেদন করলেই ১০ হাজার টাকা!

   
প্রকাশিত: ২:১৩ অপরাহ্ণ, ৭ মার্চ ২০২১

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে আবেদন করলেই ৭ থেকে ১০ হাজার টাকা পাওয়া যাবে এমন খবরে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে হঠাৎ করেই স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে কয়েকদিন থেকে শিক্ষার্থীদের ঢল লক্ষ করা যাচ্ছে। এতে কম্পিউটার ও ফটোকপি দোকান গুলোতে শিক্ষার্থীদের উপচে পড়া ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে।

জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ১৮ জানুয়ারি সিনিয়র সহকারী সচিব স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক-কর্মচারী, প্রতিবন্ধী, অসহায়, রোগগ্রস্থ্য, গরীব মেধাবী অনগ্রসর সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনুদানের টাকা বিতরণের জন্য অনলাইনে আবেদন পত্র আহ্বান করে। এই আবেদনের তারিখ ২৮ শে ফেব্রুয়ারি শেষ হলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় তা ৭ ই মার্চ পর্যন্ত বৃদ্ধি করে। মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে আবেদন করলেই ৭ থেকে ১০ হাজার টাকা পাওয়া যাবে এই খবরে উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পরে। এতে অধিকাংশ শিক্ষার্থী ও অভিভাবক অনুদানের আবেদনের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে করোনা স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে ভিড় জমিয়ে প্রত্যয়নপত্র নিতে দেখা গেছে। একবারে এতোগুলো প্রত্যয়ন পত্র সরবরাহ করতে হিমশিম খাচ্ছেন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা। এ ছাড়া গত ৪ ফেব্রুয়ারি এবিষয়ে প্রতারণা এড়াতে আরও একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

আক্কেলপুর মুজিবর রহমান সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী মিশু বলেন, ‘আবেদন করলেই ১০ হাজার টাকা পাওয়া যাবে এমন খবরে কলেজে গিয়ে দেখি প্রায় শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়ে প্রত্যয়নপত্র সংগ্রহ করছে। আমিও প্রত্যয়ন নিয়ে আবেদন করেছি। তবে টাকা পাবো কিনা জানিনা।’

এ বিষয়ে আক্কেলপুর মুজিবর রহমান সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোকছেদ আলী বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে শিক্ষার্থীরা অনলাইনে আবেদন করছে। আমাদের এটিতে সুপারিশ করার কোন সুযোগ নেই। আবেদনে প্রত্যয়ন প্রয়োজন হওয়ায় আমরা তা সরবরাহ করছি।’

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মকবুল হোসেন বলেন, ‘সকলেই ১০ হাজার টাকা পাবে এটি গুজব। মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক সকল শিক্ষার্থীই আবেদন করতে পারে কিন্তু টাকা সকলেই পাবে না। এটি চলমান প্রক্রিয়া। যাচাই বাছাই করে ক্যাটাগরি অনুসারে অনুদান পাবে। গুজব রোধে আমরা সচেষ্ট আছি।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম হাবিবুল হাসান বলেন, ‘গুজবের ব্যাপারে আমরা সর্বদা সর্তক অবস্থানে রয়েছি, যে কোন ধরণের গুজব প্রতিহত করা হবে। এ বিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে এবং মাইকিং করা হবে।’

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: