প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মনিরুল ইসলাম

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

মামার সাথে মারামারি, বাঁচাতে গিয়ে বলি হলেন ভাগ্নে বউ

   
প্রকাশিত: ২:০০ পূর্বাহ্ণ, ১৮ এপ্রিল ২০২১

মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায় ধাঁরালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত সেই গৃহবধূর নাম রবিতা বাক্তি (৩২)। রবিতা উপজেলার নিউ সমনবাগ বাগানের বাসিন্দা অটোরিকশাচালক চা সুষেন বাক্তির স্ত্রী।

গতকাল শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) রাত ৯ টার দিকে উপজেলার নিউ সমনবাগ চা বাগানে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত প্রদীপ বাক্তি মিঠুনকে (৩০) আটক করেছে। এদিকে আজ শনিবার হত্যার দায় স্বীকার করে প্রদীপ বাক্তি মিঠুন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দি শেষে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শিশুদের ঝগড়াকে কেন্দ্র করে শুক্রবার রাতে চা শ্রমিক মিঠুন মামা (রবিতার শ্বশুর) ভাগ্য বাক্তির সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন। একপর্যায়ে তিনি তার মামার ওপর হামলার চেষ্টা করেন। এসময় রবিতা বাক্তি শ্বশুরকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে মিঠুন তাঁর হাতে থাকা দা দিয়ে রবিতার পেটে আঘাত করে। এতে রবিতা গুরুতর আহত হন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রবিতাকে উদ্ধার করে চা বাগানের হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পরই স্থানীয়রা মিঠুনকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে এবং মিঠুনকে আটক করে।

বড়লেখা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন দেবনাথ শনিবার বিকেলে, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রদীপকে আটক করেছে। এই ঘটনায় নিহত রবিতার স্বামী সুষেন বাক্তি প্রদীপের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন। শনিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। রবিতার স্বামীর করা মামলায় প্রদীপকে গ্রেফতার দেখিয়ে আজ আদালতে সোপর্দ করা হয়। প্রদীপ আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। পরে আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শাওন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: