প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

খালেদার অবস্থা স্থিতিশীল, রাতে দেখতে যাবেন চিকিৎসক

   
প্রকাশিত: ১০:৩৪ অপরাহ্ণ, ১৮ এপ্রিল ২০২১

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. আল মামুন। রবিবার (১৮ এপ্রিল) খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল। আমরা সার্বক্ষণিক তাকে ক্লোজ মনিটরিং করছি, যাতে যে কোনো ধরনের বিপদের লক্ষণ দেখা গেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে পারি।

এর আগে শুক্রবার গুলশানে খালেদা জিয়ার বাসভবন ফিরোজায় মধ্যরাত পর্যন্ত মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা ছিলেন। সেখানে মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ডা. এফ এম সিদ্দিকী, ডা. জাহিদ হোসেন, ডা. মো. শাকুর খান ও ডা. আল মামুন অনলাইনে মিটিং করেন লন্ডনে অবস্থানরত খালেদা জিয়ার বড় ছেলের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের সঙ্গে। মিটিংয়ে তারা খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে পর্যালোচনা করেন।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. আল মামুন বলেন, ম্যাডামের অবস্থা স্থিতিশীল আছে। আজ রাত নয়টার দিকে আমি তাকে দেখতে যাবো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত অন্য এক চিকিৎসক বলেন, গতকাল অনেক রাতে ম্যাডামের বাসা থেকে আমরা বের হয়েছি। আজকে এখন পর্যন্ত কেউ কোনো চিকিৎসক সশরীরে তাকে দেখতে যাননি। তবে, সার্বক্ষণিক তার খোঁজ-খবর রাখছি আমরা।

তিনি আরও বলেন, গত কয়েকদিন ধরে নিয়মিত বিরতিতে ম্যাডামের শরীরে জ্বর আসছে। যদিও এটা খুব বেশি সময় স্থায়ী হচ্ছে না। আমরা এটা নিয়ে খুব একটা চিন্তা করছি না। কারণ ভাইরাস জ্বরও এই রকম আসা-যাওয়ার মধ্যে থাকে।

এর আগে গতকাল রাতে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এফ এম সিদ্দিকী বলেন, মনে রাখতে হবে যে আজকে হলো তার (খালেদা জিয়ার) করোনা আক্রান্তের নবম দিন। অর্থাৎ আমরা দ্বিতীয় সপ্তাহের জটিল সময়টা পার হয়েছি। এরমধ্যে যাতে কখনও কোনো রকমের জটিলতা বা বিপদ সংকেত আমরা পাই, সেই অনুযায়ী তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবো। কিন্তু এখনও পর্যন্ত আলহামদুল্লিাহ সবকিছু মনে হচ্ছে যে ঠিকঠাক মতোই হচ্ছে। আমরা আগেও বলেছি, এখনও বলছি এই সপ্তাহ না যাওয়া পর্যন্ত যেকোনো সময় ম্যাডামের জটিলতা দেখা দিতে পারে। সেই জন্য তাকে ক্লোজ মনিটর করে যাচ্ছি। সেটা চালিয়ে যাবো।

তাহলে কি খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার কোনও পরিকল্পনা নেই জানতে চাইলে ডা. সিদ্দিকী বলেন, আমরা যদি মনে করে তাকে নেওয়া দরকার। তাহলে খুব দ্রুই তাকে শিফট করতে পারবো। তবে, এখন পর্যন্ত সে রকম অবস্থা দেখা যায়নি। সবকিছুই মিলেই ম্যাডামের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলা যায়।

গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। তিনি ছাড়াও তার বাসভবন ফিরোজার আরও আটজন ব্যক্তিগত স্টাফের করোনা শনাক্ত আক্রান্ত হয়। তাদের চিকিৎসাও গুলশানের বাসভবনে চলছে।

কাওসার/শিই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: