প্রচ্ছদ / অন্যান্য... / বিস্তারিত

আনভীরের কি হবে? একটি অনুমান

   
প্রকাশিত: ১০:২৯ অপরাহ্ণ, ২৭ এপ্রিল ২০২১

সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল। মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) নিজের ফেসবুক পেজে দেয়া ওই স্ট্যাটাসে দিয়েছেন।

তার স্ট্যাটাসটি বিডি২৪লাইভের পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হল:

আনভীরের কি হবে? একটি অনুমান।
(আনভীর বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি। আত্নহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়েছে তার বিরুদ্ধে)

আনভীর বিদেশে চলে যাবে। এজন্য কাউকে শাস্তি পেতে হবে না।

সে কখনো বাই চান্স গ্রেফতার হলেও খুব অল্প সময়ের মধ্যে জামিন পাবে। তার কোন রিমান্ড হবে না।

তার পরিবারের সদস্যদের (যাদের নাম অভিযোগপত্রে আছে) বিষয়ে পত্রিকায় কিছু লেখা হবে না।

সোস্যাল মিডিয়ায় ভিকটিম মেয়েটি ও তার পরিবার কতো খারাপ এনিয়ে একদল মানুষ লেখা শুরু করবে।

মিডিয়ায় বসুন্ধরার বিজ্ঞাপন বাড়বে।

কালোটাকার লেনদেন বাড়বে। দু’একজনের কোটি কোটি টাকার বাণিজ্য হবে।

মামলায় ফাইনাল রিপোর্ট হবে (বা বাতিল হবে)। না হলে ঝুলে থাকবে। সাক্ষী বা প্রমান পাওয়া যাবে না।

আমরা সব ভুলে যাবো।

আবারো আনভীরের হাসিমাখা মুখের ছবি সর্বোচ্চ্ ক্ষমতাধরদের সাথে দেখা যাবে।

আনভীর আরো কোন বড় অপরাধ করার কনফিডেন্স পাবে।

একদল আবারো বলবে বিকল্প কি!

(বার্তা: আনভীর বিরোধী দল বা ভিন্নমতালম্বী না, রামপাল বিরোধী না, সীমান্ত হত্যার প্রতিবাদী না। সে উপযুক্ত জায়গায় দানশীল ডীপ স্টেট। কাজেই সে নির্দোষ।) ফেসবুক থেকে নেয়া।

গুলশান দুই নম্বর এভিনিউয়ের ১২০ নম্বর সড়কের ১৯ নম্বর প্লটের বি/৩ ফ্ল্যাটে একা থাকতেন কলেজছাত্রী মুনিয়া। চলতি বছরের মার্চ মাসে এক লাখ টাকা মাসিক ভাড়ায় তিনি ওই ফ্ল্যাটে ওঠেন। সোমবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ওই বাসা থেকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় মুনিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়।

কাওসার/শিই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: