প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

মালয়েশিয়ায় প্রবেশে বাংলাদেশীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা

   
প্রকাশিত: ২:০০ অপরাহ্ণ, ৬ মে ২০২১

সম্প্রতি ভারতে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়াতে ও করোনার ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমন রোধে এবার বাংলাদেশিদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রুল জারি করেছেন। উক্ত এ তালিকায় আরো আছে পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং নেপালেরও নাম।

বুধবার (০৫ মে) নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির সিনিয়র মন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব। এর আগে অধিক সংক্রমণের দেশ হিসাবে বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি দেশের নাগরিকের উপর মালয়েশিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিলো।

ভারত থেকে আসা এক ব্যাক্তির শরীরে কোভিড-১৯ ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর ভারতের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ভারতের পার্শ্ববর্তি দেশগুলোর উপরও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

সম্প্রতিক, ভারত থেকে দেশটিতে যাওয়া এক যাত্রীর শরীরে করোনার ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর ভারতের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় মালয়েশিয়া। এরই ধারাবাহিকতায় ভারতের পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর ওপরও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলে জানান মালয় মন্ত্রী। এর ফলে এসব দেশ থেকে কেউই এখন মালয়েশিয়ায় ঢুকতে পারবেন না। তবে শুধুমাত্র কূটনৈতিক ভিসাধারীরা শর্তসাপেক্ষে আসা-যাওয়া করতে পারবেন।

অন্যদিকে করোনা সংক্রমণ রোধে সেলাঙ্গড়ের ছয়টি জেলার পর এবার কুয়ালালামপুরে মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার নামে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। ৭ মে থেকে ২০ মে পর্যন্ত চলবে এ নিয়ন্ত্রণ আদেশ। শুধু কুয়ালালামপুর নয় জোহর, পেরাক ও তেরেঙ্গানুর বেশ কয়েকটি অঞ্চলেও এমসিও’র আওতায় আনা হয়েছে।

একই সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে যেসব মালয়েশিয়ান বাইরে থেকে প্রবেশ করবেন তাদেরকে বাধ্যতামুলক ১৪ দিনের কোয়ারিন্টাইনের প্রস্তাব দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এ প্রস্তাবে সম্মতিও দিয়েছে।

উল্লেখ্য মালয়েশিয়ায় করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। গতকাল পর্যন্ত দেশটিতে ৩৭৪৪ জন সংক্রমিত হয়েছে, মারা গেছে ১৭ জন এবং সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২৩০৪ জন।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: