প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ফরমান শেখ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রসূতির পেটে গজ রেখে সেলাই, অবশেষে পাঁচ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

   
প্রকাশিত: ১০:১০ অপরাহ্ণ, ৬ মে ২০২১

টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে এক প্রসূতির পেটে গজ রেখে সেলাই করার ঘটনায় পাঁচ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (৬ মে) টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (টাঙ্গাইল সদর) আমলী আদালতে প্রসূতির বাবা এসএম মাহবুব হোসাইন ওই মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার বাদী এসএম মাহবুব হোসাইন জানান, গত ৩১ জানুয়ারি তার মেয়েকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। অস্ত্রোপচারের পর তার মেয়ের পেটে গজ রেখে চিকিৎসকেরা সেলাই করে দেন। তারা হচ্ছেন- হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নিসফুন নাহার, ডা. অপু সাহা, ডা. আবেদা সুলতানা, ডা. ফজলুল হক ও ডা. জাকির।

তিনি জানান, গজ পেটে রয়ে যাওয়ায় পরদিন থেকেই তার মেয়ের পেটে ব্যথা শুরু হয়। গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা সন্দেহে ওই হাসপাতালেই টানা ২২ দিন চিকিৎসা চালানো হয়। অবস্থার অবনতি হলে গত ১ মার্চ তার মেয়েকে ঢাকার হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সিটি স্ক্যানে পেটের ভেতরে অস্বাভাবিক কিছু ধরা পড়ে। পরে ৩ মার্চ পুনরায় অস্ত্রোপচার করে চিকিৎসকরা তার পেট থেকে প্রায় এক ফুট লম্বা গজ বের করেন।

তিনি আরও জানান, চিকিৎসকদের এ অবহেলার জন্য তিনি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। তিনি ঘটনার সঠিক তদন্ত ও সব আসামির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. খন্দকার সাদিকুর রহমান গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, এ বিষয়ে হাসপাতালের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়। কমিটির তদন্তে রোগীর স্বজনদের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। তবে ঘটনাটি অনিচ্ছাকৃত ও অনাকাঙ্খিত।

তিনি আরও জানান, তারা এ ঘটনায় জড়িত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কৈফিয়ত তলব করবেন এবং বিভাগীয় সঠিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ করবেন।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: