প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

তিন বন্ধুকে দাফনও করা হল পাশাপাশি

   
প্রকাশিত: ২:০৫ অপরাহ্ণ, ১৮ মে ২০২১

পদ্মাসেতু দেখে ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত নড়াইলের তিন বন্ধু তুর্য, রাউফুর ও সানকে জানাজা শেষে নড়াইল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে পাশাপাশি দাফন করা হয়েছে। সোমবার (১৭ মে) সন্ধ্যার দিকে সেতু দেখে বাড়ি ফেরার সময় মাওয়া-নড়াইল মহাসড়কের ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার জয় বাংলা নামক স্থানে পৌঁছালে সামনের দিক থেকে আসা একটি অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় তাদের মৃত্যু হয়। নিহতরা হলেন- নড়াইল শহরের বাসিন্দা লাহুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জিএম নজরুল জমাদ্দারের ছেলে তুর্য, মহিষখোলার কলেজশিক্ষক গাজী আমিনুর রহমানের ছেলে রাউফুর রহিম ও আলাদপুর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মান্নানের ছেলে সান।

নিহতরা ২০১৬ সালে নড়াইল সরকারি উচ্চ বালক বিদ্যালয় হতে এসএসসি পাস করে। মঙ্গলবার (১৮ মে) সকাল ১০টায় তাদের প্রিয় শিক্ষাঙ্গন নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একই সঙ্গে তিনজনের জানাজা সম্পন্ন হয়। জানাজার নামাজ পড়ান নড়াইল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ঈমাম মাওলানা শফিউল্লাহ। নামাজে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাসহ নিহতের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধবসহ হাজারো মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। জানাজা নামাজের আধা ঘণ্টা আগে নিহতের পরিবারের সদস্যরা তাদের প্রিয় সন্তানদের দোয়ার মধ্য দিয়ে বিদায় জানান। লাশের কফিনগুলি পৌঁছে যায় নির্ধারিত স্থান নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পৌঁছায়।

জানাজার নামাজ শেষে শেষবারের মতো দেখার জন্য ভিড় করেন নানা শ্রেণিপেশার মানুষ। এরপর তিন বন্ধুর কফিন একসঙ্গে নিয়ে যাওয়া হয় নড়াইল কেন্দ্রীয় পৌর কবরস্থানে। এখানে পাশাপাশি তাদের তিনজনকে শায়িত করা হয়েছে।

তাদের মৃত্যুতে নড়াইল জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আগামী শুক্রবার শহরের বিভিন্ন মসজিদে নিহতের জন্য দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: