প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

হারুন-অর-রশীদ

ফরিদপুর প্রতিনিধি

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তার প্রতিবাদে ফরিদপুরে প্রতিবাদ সভা

   
প্রকাশিত: ৫:১৪ অপরাহ্ণ, ১৮ মে ২০২১

দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তার প্রতিবাদে ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে কর্মরত সাংবাদিকরা এক নিন্দা ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। আজ মঙ্গলবার (১৮ মে) দুপুরে উপজেলার স্থানীয় একটি পত্রিকা অফিসে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। প্রতিবাদ সভা থেকে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

প্রতিবাদ সভায় সাংবাদিকরা বলেন, ‘সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের সাথে যে আচরণ করা হয়েছে তাতে আমরা চরমভাবে মর্মাহত। এটা সংবাদপত্র শিল্পের কণ্ঠরোধের সামিল। আমরা এ ধরনের ঘৃণ্য ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং অনতিবিলম্বে রোজিনা ইসলামের মুক্তি দাবি করছি।’

বোয়ালমারী থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক বোয়ালমারী বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক এ্যাডভোকেট কোরবান আলীর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় পত্রিকা চন্দনা’র সম্পাদক কাজী হাসান ফিরোজ, দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি কাজী আমিনুল ইসলাম, দৈনিক ভোরের কাগজের কামরুল সিকদার, দৈনিক ঢাকা টাইমস’র আমীর চারু বাবলু, বাংলা টিভির সুমন খাঁন, দৈনিক সকালের সময়ের মো: জাকির হোসেন, দৈনিক কালের কণ্ঠের এমএম নুর ইসলাম, দৈনিক বাংলাদেশের খবরের এমএম জামান, এশিয়ান টিভির দীপঙ্কর পোদ্দার অপু, দৈনিক আমার সংবাদের তৈয়বুর রহমান কিশোর, দৈনিক বাঙ্গালী খবরের রেজাউল করিম,দৈনিক খবরপত্রের হাসান মাহমুদ মিলু, দৈনিক ভোরের সকালের আব্দুল্লাহ আল রনি, দৈনিক ভোরের দর্পণের এসএম রুবেল, দৈনিক আজকের সংবাদের টুটুল বসু, দৈনিক আমাদের সময়ের সনৎ চক্রবর্তী, সাংবাদিক মুকুল বোস, সাপ্তাহিক বোয়ালমারী বার্তার কায়েস দেওয়ান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। পরে তাঁকে সেখানে একটি কক্ষে প্রায় ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে আটকে রেখে হেনস্তা করা হয় এবং তাঁর মুঠোফোন কেঁড়ে নেওয়া হয়। একপর্যায়ে সেখানে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে তাঁকে কিছু সরকারি নথি চুরি ও ছবি তোলার অভিযোগ এনে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করা হয়।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: