প্রচ্ছদ / অপরাধ / বিস্তারিত

চার ব্যাংক থেকে ২০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে ২ বছর পালিয়ে ছিলেন শহিদুল

   
প্রকাশিত: ১:৩৩ অপরাহ্ণ, ১৬ জুন ২০২১

গ্রেফতার শহিদুল ইসলাম

দেশের চারটি বেসরকারি ব্যাংক থেকে ২০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে পালিয়েছিলেন শহিদুল ইসলাম হাওলাদর। প্রায় দুই বছরে ধরে পালিয়ে থাকার পর অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়েছেন তিনি। শহিদুল ইসলাম ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড ও প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ঋণ নিয়ে আর ফেরত দেননি। এ ঘটনায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার নামে মামলা করে। দুটি মামলায় তার সাজা হয়েছে। সাজা মাথায় নিয়ে তিনি গত ২ বছর ধরে পলাতক ছিলেন।

ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ না করার অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি শহিদুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। মঙ্গলবার (১৫ জুন) রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সিআইডি’র ঢাকা মেট্রোর অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক।

তিনি জিানান, মো. শহিদুল ইসলাম হাওলাদার ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড ও প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ঋণ নিয়ে আর ফেরত দেননি। এ ঘটনায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার নামে মামলা করে। দুটি মামলায় তার সাজা হয়েছে। সাজা মাথায় নিয়ে তিনি গত ২ বছর ধরে পলাতক ছিলেন।

সিআইডি জানায়, তাকে গ্রেফতারে সিআইডি দেশের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধরের নেতৃত্বে সিআইডির একটি টিম ঋণ জালিয়াতির মূল হোতা মো. শহিদুল ইসলাম হাওলাদারকে সোমবার (১৪ জুন) ঢাকার পুরানা পল্টন থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঋণের অর্থ আত্মসাৎ করার বিষয়টি স্বীকার করেন।

সিআইডি আরও জানায়, মো. শহিদুল ইসলাম হাওলাদারের বিরুদ্ধে দুটি ব্যাংক মামলা করেছে। একটি মামলায় আদালত তাকে এক বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ১৫ কোটি টাকা অর্থ দণ্ড প্রদান করে। অপর মামলায়ও এক বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৫ কোটি টাকা অর্থ দণ্ড প্রদান করে আদালত। এরপর ২০১৯ সাল থেকে শহিদুল সাজা মাথায় নিয়ে পলাতক ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরে।

না.হাসান/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: