প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

সংসদে ৬০টি আসনসহ একজন পূর্ণমন্ত্রী চায় হিন্দু মহাজোট

   
প্রকাশিত: ১২:৫৮ অপরাহ্ণ, ২০ জুন ২০২১

দেশের প্রতিটি উপজেলায় মডেল মন্দির তৈরি ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ৬০টি সংরক্ষিত আসন ও একজন পূর্ণমন্ত্রীর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট। এ ছাড়া প্রস্তাবিত সংশোধিত বাজেটে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি জানানো হয়েছে।

শনিবার (১৯ জুন) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানায় সংগঠনটির নেতারা। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক, নির্বাহী সভাপতি দীনবন্ধু রায়, প্রধান সমন্বয়কারী বিজয় কৃষ্ণ ভট্টাচার্য, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক প্রতীভা বাকচী প্রমুখ।

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য কম বরাদ্দ রেখে বৈষম্য, রথযাত্রায় ১ দিনের ছুটি দাবি, সারাদেশে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন, হামলা, খুন, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, মঠ-মন্দির প্রতিমা ভাঙচুর, জমি দখল, দেশত্যাগে বাধ্যকরণের ঘটনার প্রতিকারের দাবি জানাচ্ছি।

সম্মেলনে বক্তারা বলেন, আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই— কথিত সুরক্ষা আইন হিন্দু সমাজের কোনো কাজে আসবে না। সংখ্যালঘু সমস্যার একমাত্র সমাধান জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসন ও একটি সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় সৃষ্টি করা। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ৬০টি সংরক্ষিত আসন রেখে পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা করে সেখানে সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে একজনকে পূর্ণ মন্ত্রী নিয়োগ করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে সরকারের কাছে কয়েকটি দাবি তুলে ধরে হিন্দু মহাজোট। দাবিগুলো হলো—

১। ২০২১-২২ অর্থবছরে হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য জনসংখ্যা অনুপাতে ২২৫৮.১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করতে হবে এবং অতিরিক্ত ৫০০০ কোটি টাকার থোক বরাদ্দ দিতে হবে, যা দিয়ে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মডেল মন্দির নির্মাণ করতে হবে।

২। রথযাত্রায় ১ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করতে হবে।

৩। হিন্দু ধর্মীয় বিধি বিধানের কোনো ধরনের পরিবর্তন করা যাবে না, করতে দেয়া হবে না। একই সঙ্গে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ও বাঁচতে শেখা নামে দুটি হিন্দু ধর্ম ও সমাজ বিরোধী এনজিওর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

৪। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ৬০টি সংরক্ষিত আসন ও পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে।

৫। একটি সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে একজনকে পূর্ণ মন্ত্রী নিয়োগ দিতে হবে।

আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে সরকারকে ১, ২ ও ৩ নম্বর দাবি বাস্তবায়নসহ অন্যান্য দাবি বাস্তবায়নের সুস্পষ্ট ঘোষণা দিতে হবে। অন্যথায় হিন্দু সম্প্রদায় সারা দেশের প্রত্যেক জেলা ও উপজেলা সদরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

না.হাসান/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: