প্রচ্ছদ / শিক্ষা / বিস্তারিত

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলবে

   
প্রকাশিত: ৬:২৫ অপরাহ্ণ, ২৬ জুলাই ২০২১

ছবি: ইন্টারনেট

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী ও মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত করা হলেও চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলবে। আজ সোমবার (২৬ জুলাই) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মাধ্যমিক শাখার পরিচালক মো. বেলাল হোসাইন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে স্কুলগুলোকে। আর শিক্ষার্থীরা সুবিধাজনক সময়ে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে পারবেন।

তিনি বলেন, আমরা ২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী ও ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম স্থগিত করেছি। কিন্তু চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট চলবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদে অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ ও জমা নেওয়ার কার্যক্রম পরিচালনা করতে সব স্কুলকে বলা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, লকডাউন এলাকায় শিক্ষার্থীদের সুবিধাজনক সময়ে অ্যাসাইনমেন্ট জমার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। সে নির্দেশনা বহাল থাকবে। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সুবিধাজনক সময়ে অ্যাসাইনমেন্ট জমা নেবে স্কুলগুলো।

তবে অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, ঈদ পরবর্তীতে ২৬ জুলাই থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশের কথা থাকলেও তা এনসিটিবি থেকে হাতে পায়নি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। সংগ্রহ করে তা প্রকাশ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তিন সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রস্তত রয়েছে।

এর আগে ১৫ জুলাই করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে আসলে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসএসসি ও ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তা রয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মন্ত্রী বলেন, এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ২৪-৩০টি অ্যাসাইনমেন্টের ভিত্তিতে তিন ঘণ্টার পরীক্ষা দেড় ঘণ্টায় নেয়া হবে। তাই কোনো শিক্ষার্থী যদি অ্যাসাইনমেন্টগুলো ভালো ভাবে করে তবে পরীক্ষায় কোনো সমস্যা হবে না। আগে পরীক্ষায় যেমন ১০টি প্রশ্নের মধ্যে ৮টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হত। এখন সেই ১০টি প্রশ্নই থাকবে হয়তো উত্তর দিতে হবে মাত্র তিনটি প্রশ্নের। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের অপশন বেড়ে যাবে। তাই পরীক্ষা দিতে সুবিধা হবে। মানবন্টনও ১০০ নম্বরের জায়গায় ৫০ নম্বর করে দেয়া হবে। আমরা হয়তো মূল্যায়নের সময় সেটাকে ১০০ নম্বরে কনভার্ট করে নেয়া হবে।

প্রশ্নের ধরন কেমন হবে এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, প্রত্যেকবার যেমন প্রশ্ন হয় তেমনি থাকবে কিন্তু চয়েজ অনেক বেশি থাকবে। এসএসসির সাবজেক্ট ম্যাপিং জেএসসির বিষয়গুলোর উপর নির্ভর করে মূল্যায়ন করা হবে। তিনি আরও বলেন, তবে যেটাই হোক সশরীরে প্রতিষ্ঠানে যেয়ে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে নেয়া সম্ভব নয়। তবে পরিস্থিতি ভালো হলে আমরা এই গ্যাপ কাটিয়ে শিক্ষার্থীদের সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হবে।

নাঈম/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: