করোনাকালে কৃষি ও পল্লী ঋণে বরাদ্দ বেড়েছে

   
প্রকাশিত: ৯:০৭ অপরাহ্ণ, ২৯ জুলাই ২০২১

প্রতীকি ও ফাইল ছবি

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্টি হওয়া আর্থিক সংকট মোকাবিলা এবং সরকারের কৃষি ও কৃষকবান্ধব নীতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। চলতি অর্থবছর কেন্দ্রীয় ব্যাংক ২৮ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা ঋণ প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। যা গত অর্থবছর ছিল ২৬ হাজার ২৮২ কোটি টাকা। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই ২০২১) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংক এ তথ্য জানায়। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের টেকসই উন্নয়নের নির্ধারিত লক্ষ্য বাস্তবায়নে দারিদ্র্য বিমোচন, ক্ষুধা মুক্তি এবং গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নের উদ্দেশে পল্লী অঞ্চলে পর্যাপ্ত কৃষি ঋণ প্রবাহ বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির জন্যই বাংলাদেশ ব্যাংক ২০২১-২০২২ অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করেছে।

চলতি অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা বিগত ২০২০-২১ অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রা ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকার তুলনায় ৭ দশমিক ৯৮ শতাংশ বেশি। ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকসমূহ দেবে ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা এবং বেসরকারি ও বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ দেবে ১৭ হাজার ৩৪৬ কোটি টাকা।

সার্কুলারে এবারের নীতিমালার উল্লেখযোগ্য নতুন সংযোজিত বিষয়সমূহের মধ্যে রয়েছে- ১. প্রাণিসম্পদ খাতের পোল্ট্রি উপখাতের আওতায় সোনালী মুরগী পালনের জন্য ঋণ প্রদান সংক্রান্ত ঋণ প্রদানের নিয়ম। ২. প্রাণিসম্পদ খাতের পশুসম্পদ উপখাতের আওতায় মহিষ ও গাড়ল পালনের জন্য ঋণ প্রদান সংক্রান্ত ঋণ নীতিমালা। ৩. কৃষি ঋণের সুদের হার এক শতাংশ কমে ৮ শতাংশে নির্ধারণ। ৪. ফসলভিত্তিক ঋণে উল্লেখিত একর প্রতি ঋণসীমা কৃষকদের প্রকৃত চাহিদা ও বাস্তবতার নিরিখে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি/হ্রাস  করা যাবে। ৫. মৎস্য চাষের ঋণে একর প্রতি ঋণ সীমা বৃদ্ধি করা। ৬. ব্যাংকের বিতরণ করা ঋণের তদারকি অধিকতর জোরদার করণের লক্ষ্যে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ।

ফরমান/মস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: