প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

অক্সফোর্ডের আরও ৮ লাখ ডোজ টিকা আসছে শনিবার

   
প্রকাশিত: ১০:২৫ অপরাহ্ণ, ৩০ জুলাই ২০২১

ছবি : ইন্টারনেট

শনিবার (৩১ জুলাই) ও বুধবার (৪ আগস্ট) অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ১৩ লাখ ডোজ টিকা আসছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। শুক্রবার (৩০ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের গঠিত ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক এ তথ্য জানান।

জানা যায়, টিকার বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের মাধ্যমে জাপান থেকে শনিবার (৩১ জুলাই) ৭ লাখ ৮১ হাজার ৩২০ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ঢাকায় আসছে। জাপান থেকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভ্যাক্সের আওতায় উপহার হিসেবে এটি দ্বিতীয় চালান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, জাপানের উপহারের অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম চালানের আড়াই লাখ দেশে এসেছে। দ্বিতীয় চালান শনিবার (৩১ জুলাই) আসছে। এর পরের চালান আগামী (৪ আগস্ট) দেশে আসবে। এ দুই চালানে মোট ১৩ লাখ টিকা আসবে।

এদিকে টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাস জানায়, জাপান থেকে কোভ্যাক্সের আওতায় ৭ লাখ ৮১ হাজার ৩২০ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় চালান নিয়ে অল নিপ্পন এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট ঢাকার পথে রওনা করবে। জাপানের স্থানীয় সময় রাত ১০টা ৪০ মিনিটে ফ্লাইটটি নারিতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে টিকাগুলো নিয়ে ছেড়ে আসবে। শনিবার (৩১ জুলাই) টিকা নিয়ে ফ্লাইটটি ঢাকায় পৌঁছাবে।

গত ২৪ জুলাই জাপানের উপহারের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকার প্রথম চালান দেশে পৌঁছায়।

সম্প্রতি জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি কোভ্যাক্সের আওতায় ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা উপহারের ঘোষণা দেন। সেই তালিকায় বাংলাদেশের নামও ছিল। সেখান থেকেই অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য, জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা কোভ্যাক্সের আওতায় দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। জাপানের উপহার পাবে এমন দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নাম। তালিকা অনুযায়ী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২৯ লাখ টিকা পাবে বাংলাদেশ।

তুষার/জু.সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: