প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

নুরুল আমিন

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

৭দিনেও খোঁজ মেলেনি, সাবেক হেডম্যানক লাল থন এর

   
প্রকাশিত: ২:৩৭ অপরাহ্ণ, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

র্ঙ্গামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের শান্তি আবাসিক হোটেল থেকে ডিবি পরিচয় দিয়ে সাবেক হেডম্যান লাল থন পাংখোয়া নামে এ ব্যক্তিকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপহরণের ৭ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও খোঁজ মেলেনি তাঁর। আজ বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেন, অপহৃতের ছোট ভাই লালসিয়াম পাংখোয়া। তিনি জানান, গত বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে জেলার বরকল উপজেলার চাইচাল পাড়ার হতে রাঙ্গামাটি শহরে নাক ও চোখের সমস্যাজনিত কারণে চিকিৎসা নিতে আসেন তার বড় ভাই লালথন পাংখোয়া। তাঁর সাথে এলাকার প্রতিবেশী নতুন কুমার চাকমা ও কালবি চাকমা স্বামী-স্ত্রী দু’জনেই চিকিৎসা নিতে আসেন। ওই দিন স্বামী-স্ত্রী নতুন কুমার চাকমা ও কালবি চাকমা চিকিৎসা নিতে পারলেও তাঁর বড় ভাই লালথন পাংখোয়া চিকিৎসা নিতে পারেনি। এরপর তারা রাঙ্গামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের শান্তি আবাসিক হোটেলের কক্ষ ভাড়ায় নেন। পরদিন বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হোটেলে ৫ জন ব্যক্তি ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে তাদের কক্ষে প্রবেশ করে।

এসময় তাঁর বড় ভাইকে ডেকে নিয়ে যায় তারা। এরপর থেকেই মোবাইল বন্ধ রয়েছে অপহৃত লালথন পাংখোয়ার। কোথায় আছেন, জীবিত আছেন নাকি মারা গেছেন, দীর্ঘ ৭ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। তাই তিনি প্রশাসনের নিকট তার ভাইকে উদ্ধারের জোর দাবি জানান। প্রত্যক্ষদর্শী নতুন কুমার চাকমা জানান, তাঁর স্ত্রী কালবি চাকমার পেটের সমস্যাজনিত কারণে বুধবার হেডম্যান সহ চিকিৎসার জন্য রাঙ্গামাটিতে আসেন। ওই দিন তার স্ত্রীর চিকিৎসা নিতে পারলেও হেডম্যান চিকিৎসা নিতে পারেননি। এরপর তারা রিজার্ভ বাজারের শান্তি আবাসিক হোটেলে কক্ষ ভাড়া নেন। পরদিন দুপুরে ৫ জন অচেনা ব্যক্তি এসে হোটেলের কক্ষে প্রবেশ করে লালতনের সাথে
কথা বলেন এবং নড়াচড়া না করার হুমকি দেন। এরপর পাশে থাকা অবস্থায় লালথন নিজের পরিচয় দিলে তাকে বাইরে ডেকে নিয়ে যান। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ রয়েছেন।

শান্তি আবাসিক হোটেলের ম্যানেজার মিটু কর জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৪ থেকে ৫ জন ব্যক্তি হোটেলে এসে লালথনের নাম খোঁজে এন্ট্রি বই চেক করে। এরপর তারা পরিচয় নিশ্চিত হয়ে কক্ষে প্রবেশ করে লালথন পাংখোয়াকে একটি বাক্সের কথা বলে এবং সাথে থাকা আরেকজন ব্যক্তির কথা জিজ্ঞেস করে। পরে এসব প্রশ্নে অস্বীকার করলে তাকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। বরকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গত (১৭ সেপ্টেম্বর) শুক্রবার অপহৃত লালথন পাংখোয়ার স্ত্রী জিনপারি পাংখোয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনার তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। এখনও পর্যন্ত তার কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি বলে তিনি জানান।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: