অনিল চন্দ্র রায়

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে আমন ধানে ছত্রাক পোকার আক্রমণ, দিশেহারা কৃষক

   
প্রকাশিত: ১০:১০ অপরাহ্ণ, ১২ অক্টোবর ২০২১

পোকার আক্রমণে ক্ষেতের ধানের গাছগুলো লালচে বর্ণ হয়ে মরে যাচ্ছে। ছবি- প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় আমন ক্ষেতে দেখা দিয়েছে ছত্রাক পোকার আক্রমণ। সংক্রমন দ্রুত ছড়িয়ে পরায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পরেছেন। ক্ষেতে ঔষধ প্রয়োগ করেও কাজে না আসায় সংক্রমিত চারা তুলে ফেলার পরামর্শ দিয়ে কৃষি বিভাগ।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা বিডি২৪লাইভকে জানান, চলতি বছরের বন্যায় উপজেলায় আমন ক্ষেতে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এরপর বন্যা কেটে গেলে কৃষকরা পূণরায় ধার দেনা করে অধিক মূল্যে আমন চারা সংগ্রহ করে আবারও রোপন করেন। কিন্তু পোকার আক্রমণে ক্ষেতের ধানের গাছগুলো লালচে বর্ণ হয়ে মরে যাচ্ছে। আমন ক্ষেতের এমন দুর্দশা দেখে কৃষক হতাশ।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার থানাহাট ইউনিয়নের গাবেরতল এলাকার কৃষক গোলজার হোসেনের জমির আমন ক্ষেত পোকার আক্রমনে পুরোটাই নষ্ট হয়ে গেছে। সংক্রমন দ্রুত ছড়িয়ে পরায় আনছার আলীর- ২১শতক, মমিন মিয়ার-২৭ শতক, জয়দুল হকের- ৭শতক, বেলাল হকের-১২শতক, আশরাফুল হকের-১৮ শতক, ধলা মিয়ার-২৭ শতক, আমিন উদ্দিনের-১৮ শতক জমির ক্ষেত বিনষ্ট হয়।

গোলজার হোসেন বিডি২৪লাইভকে বলেন, প্রথম দফা বন্যার পরে আমন ক্ষেত রোপন করি। দ্বিতীয় দফায় বন্যায় আমনের সেই ক্ষেত পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যায়। পরে সুদের উপর টাকা নিয়ে আমন চারা ক্রয় করে আবারো রোপন করি। পোকার আক্রমণে দেখা দিলে কৃষি অফিসের পরামর্শে ওষুধ দিয়েও লাভ হয়নি। এতে কোন প্রকার কাজ না হওয়ায় আবারও ওষুধ পাল্টে দিয়েও কাজ হয়নি। পুরো জমির ফসল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

একই এলাকার কৃষক জয়দুল মিয়া বলেন বিডি২৪লাইভকে, হঠাৎ এমন পোকার আক্রমণে আমনের খেত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। দেনা করে আবাদ করছি। ফলন আসার আগেই ক্ষেত মরি গেলে দেনা শোধ করমো নাকি সামনে কিভাবে সংসার চলবে সেই চিন্তায় দিশেহারা দিন কাটছে।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কুমার প্রনয় বিষান দাস বিডি২৪লাইভকে বলেন, আক্রান্ত জমিতে কৃষকদের সপছিন, মিপছিন, ইমিটেব জাতীয় ঔষুধ প্রয়োগের পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তা না করে অন্য ঔষধ প্রয়োগ করায় ফলাফল পাওয়া যায়নি। কৃষকদেরকে সংক্রমিত চারা তুলে ফেলার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।

ফরমান/মস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: