থানায় মামলা না নিলে যা করনীয়

   
প্রকাশিত: ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, ১৩ অক্টোবর ২০২১

মামলা দায়েরের প্রথম স্থান হলো থানা।আমলযোগ্য অপরাধের মামলা থানাতে এজাহার হিসেবে দায়ের করা হয়। আর আমলঅযোগ্য অপরাধের মামলা থানায় করতে গেলে নিয়ম হলো পুলিশ মামলাটি সাধারণ ডাইরিতে লিপিবদ্ধ করে উক্ত অভিযোগকারীকে আদালতে পাঠিয়ে দিবে।অথবা কেও চাইলে আমলঅযোগ্য অপরাধের অভিযোগ সরাসরি আদালতে দায়ের করতে পারে। কোন অপরাধ আমলযোগ্য এবং কোন অপরাধ আমলঅযোগ্য তা ফৌজদারি কার্যবিধির দ্বিতীয় তফসিলের তৃতীয় কলামে বলা আছে।

সাধারণত মামলা দুইটি স্থানে করা হয়। ১। থানায় ২। আদালতে। এখন কথা হলো প্রায় প্রায়ই খবরে শোনা যায় থানা মামলা গ্রহন করে নাই বা মামলা গ্রহন করতে অস্বীকার করেছে।এখন এর প্রতিকার কি? তাহলে কি সাধারণ মানুষ ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হবে? মামলা না করলে ভুক্তভোগী প্রতিকারই বা পাবে কিভাবে? অপরাধীরা কি এভাবে পার পেয়ে যাবে? চিন্তার কোন কারন নাই আপনার জন্য যদি ন্যায় বিচারের একটি পথ বন্ধ হয়ে যায় তাহলে আরো অনেক পথ আছে যেখান থেকে আপনি ন্যায় বিচার পাবেন ইনশাআল্লাহ। থানায় মামলা না নিলেও আপনি অনেক যায়গায় মামলা দায়ের করতে পারবেন।

১/ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করতে পারবেন।
২/ হাইকোর্টে রিট দায়ের করতে পারবেন।
৩/ মানবাধিকার কমিশনে অভিযোগ দায়ের করতে পারেন।
৪/ এসপি অফিসে অভিযোগ করতে পারেন।
৫/ আপনার থানা যে এএসপি এর সার্কেলে তার কাছে অভিযোগ দিতে পারেন।

ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাঃ

থানা যদি কোন কারনে আমলা না নেয় তাহলে আমলযোগ্য হোক কিংবা আমলঅযোগ্য সব ধরনের মামলাই আদালতে দায়ের করতে পারবেন।এ জন্য একজন উকিলের মাধ্যমে আদালতে নালিশ দায়ের করতে পারবেন।আদালতে সাধারণত আপনি লিখিত এবং মৌখিক দুইভাবেই নালিশ দায়ের করতে পারবেন।আদালত নালিশকারীকে এবং সাক্ষীদের পরীক্ষা করে মামলা আমলে নিবেন।আদালত যদি মনে করেন ঘটনা অসত্য এবং মিথ্যা। মামলা দায়েরের কোন কারন নেই তাহলে আদালত উক্ত নালিশ খারিজ করে দিবেন।এখন মনে করুন আদালত কোন কারনে নালিশ খারিজ করে দিল তাহলে কি করবেন?
তাহলেও প্রতিকার আছে উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে আপনি দায়রা জজ আদালতে বা হাইকোর্ট ডিভিশনে রিভিশন দায়ের করতে পারেন।

হাইকোর্টে রিট দায়েরঃ

কোন কারনে থানা মামলা না নিলে আপনি হাইকোর্টে রিট দায়ের করতে পারেন।তখন হাইকোর্ট থানাকে মামলা গ্রহন করার নির্দেশ দিলে থানা মামলা নিতে বাধ্য থাকবে।

মানবাধিকার কমিশনে অভিযোগঃ থানায় মামলা গ্রহন না করলে অভিযোগ দেওয়ার আর একটি জায়গা হচ্ছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন।বিশেষ করে নারী নির্যাতনের মামলায় তারা পদক্ষেপ গ্রহন করে।

এসপি অফিসে অভিযোগঃ

আপনার মামলা থানা গ্রহন না করলে উক্ত থানা যে এসপি এর অধীনে তার কাছে আইনি আশ্রয় প্রার্থনা করতে পারেন।এজন্য অবশ্য থানায় মামলা করার সময় কিছু লোক সাথে নিয়ে যেতে হয় কেননা থানা যে মামলা গ্রহন করে নাই তার সাক্ষ্য যাতে তারা দিতে পারে।

সার্কেল এএসপির কাছে অভিযোগ দায়েরঃ

থানা মামলা গ্রহন না করলে আপনি এসপি অফিসের মতো সার্কেল এএসপির কাছেও আইনি আশ্রয় প্রার্থনা করতে পারেন।

শেখ মনিরুজ্জামান
শিক্ষানবিশ অ্যাডভোকেট
জামালপুর জজ কোর্ট

নাহিদ/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: