প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ জামাল বাদশা

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাটে ছিনতাই ও হামলার ঘটনায় দু’পক্ষের আহত ৬

   
প্রকাশিত: ১০:৩৯ অপরাহ্ণ, ১৫ অক্টোবর ২০২১

ছিনতাইয়ের ঘটনায় হামলার শিকারে আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি। ছবি- প্রতিনিধি।

লালমনিরহাটে পূর্ব শত্রুতার জেরে হামলা ও ছিনতাই এর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৬ জন আহত হয়েছে। গত বুধবার(১৩ অক্টোবর) সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে এক পক্ষ।

অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বুধবারের ঘটনার প্রায় ৬ মাস আগে বসতবাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ করেছিলো খুনিয়াগাছ পানাতিপাড়া এলাকার আব্দুস সাত্তারের পুত্রবধু রেবওয়ানা বেগম। অভিযোগটির বিষয়ে স্থানীয় ভাবে মিমাংসার জন্য অত্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বাদল দায়িত্ব নেয় এবং তখন থেকেই অভিযোগে উল্লেখিত আসামীগণ সাত্তারের পরিবারের প্রতি আখেজ পোষণ করে আসছে।

অভিযোগে উল্লেখ করে আব্দুস সাত্তার বলেন, বুধবার জমি কবলার জন্য লালমনিরহাটের উদ্দেশ্য খুনিয়াগাছ বাজারের আলম মিয়ার বিকাশের দোকানের সামন থেকে রওনা দেওয়া প্রস্তুতি কালে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একই এলাকার শাওন ও জাদু মিয়া পরিবারের সদস্যরা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে।

হামলার সময় আমাকে বাঁচাতে আমার ভাতিজা আনোয়ার নাতি আজিজুল ও খোকনসহ কয়েকজন এগিয়ে আসায় তাদের উপরও হামলা করে আহত করে শাওন, জাদু সহ তার পরিবারের সদস্যরা। তখন আমার জিবন রক্ষার্থে আমার নিকট থাকা ২ লাখ ২০ হাজার টাকা জাদুর ছেলে শাওনের হাতে দেই। তারপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত অবস্থায় আমরা হাসপাতালে ভর্তি হই। বর্তমানে আমরা ৪ জন লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছি।

অভিযুক্ত শাওনের মায়ের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমার ছেলে কাজ করতে ঢাকা গিয়েছিলো। মঙ্গলবার ঢাকা থেকে আসছে। ঘটনার দিন সকালে আব্দুস সাত্তারের স্ত্রীকে শাওন বলেছে যে এখনও বড়বা আব্দুস সাত্তার পূর্বের মত বাকা বাকা কথা বলে ওনাকে বলিয়েন যাতে ভালোভাবে কথা বলে এ বিষয়টি নিয়ে তর্ক আর মারামারি। আমার ছেলে শাওন এবং স্বামী খুবই অসুস্থ। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করেছি।

উভয় পরিবারের পূর্ব জের বিষয় নিয়ে স্থানীয়রা জানায়,পানাতিপাড়ার আব্দুস সাত্তার পরিবার এবং একই এলাকার জাদু মিয়ার পরিবারের বিরোধ স্থানীয় মসজিদ উন্নয়নে সমাজবাসীর অর্থ সংগ্রহ এবং মতামত,জমা রাখার পদ্ধতি ও গোপনীয়তা নিয়ে।

এ বিষয়টি দুই পরিবার পরে পারিবারিক দ্বন্দ্বে নিয়ে যায়। লোকমুখে প্রচলিত আছে জাদু মিয়ার ছেলে শাওন একটু উদ্ভট প্রকৃতির। তাই স্থানীয়দের অনেকেই শাওনের বিষয়ে কথা বলতে অনাগ্রহ দেখায়।

অভিযোগ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহা আলম বিডি২৪লাইভকে বলেন, ঘটনার দিনই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছিলো।তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফরমান/মস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: