প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

জুলফিকার আলী ভূট্টো

নীলফামারী প্রতিনিধি

সৈয়দপুরে নিখোঁজের ৪ দিন পর গৃহবধূর লাশ বাঁশঝাড় থেকে উদ্ধার

   
প্রকাশিত: ৬:২৫ অপরাহ্ণ, ২৬ নভেম্বর ২০২১

নীলফামারীর সৈয়দপুরে নিখোঁজের চার দিন পর গৃহবধূ লাভলী বেগমের (২৪) লাশ বাঁশঝাড় থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার(২৬নভেম্বর) সকালে উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মণপুর পশ্চিম পাড়া (খরখরিয়াপাড়া) গ্রামের একটি বাঁশঝাড় থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত লাভলী বেগম (২৪) দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার মন্মথপুর ইউনিয়নের দাগলাগঞ্জ দলবাড়ীপাড়ার বাবলু মন্ডলের মেয়ে। ১২ বছর আগে লাভলীর বিয়ে হয় পার্শবর্তী নীলফামারীর জেলার সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মণপুর পশ্চিম পাড়া (খরখরিয়াপাড়া) গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে দিনমজুর রেজাউল করিমের সাথে। তাদের সংসারে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে সন্তান হয়েছে।

লাভলী বেগমের মা মঞ্জুয়ারা বেগম জানান, ‘বিয়ের পর থেকেই রেজাউল তেমন কাজ কর্ম করে না। সংসারটা আমার মেয়েই অনেক কষ্ট করে চালিয়ে আসছে। সম্প্রতি রেজাউল করিম তার ছোট ভাইয়ের বউয়ের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলছিল। এ ঘটনায় পুরো পরিবার মিলে লাভলীর উপর শারীরিক নির্যাতন চালায়। এরই মধ্যে গত বুধবার জানতে পারি সোমবার থেকে লাভলীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্চেনা। আজ তার লাশ পাওয়া গেলো বাঁশঝাড়ে। আমার মেয়েকে ওরা আগেই হত্যা করেছে। এখন আত্মহত্যার নাটক সাজিয়ে লাশ বাঁশঝাড়ে রেখে এসেছে। আমি আমার মেয়ের খুনিদের শাস্তি চাই।’

লাভলীর মা আরও বলেন, ‘ছোট নাতনিটা বলেছে তার মাকে বাবা, দাদা ও দাদীরা মিলে পিটিয়ে মেরেছে। লাশ কয়েকদিন থেকে ঘরের ছাদে রেখে নিখোঁজ হয়েছে বলে প্রচার করে। পরে দুর্গন্ধ বের হলে শুক্রবার ভোরে পার্শবর্তী বাঁশঝাড়ে রেখে আসে। একথা বলার কারণে নাতি ও নাতনিদের আমাদের কাছে আসতে দিচ্ছে না।

এলাকাবাসী জানায়, চার দিন থেকে লাভলী বেগমকে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার রাতে কবিরাজ এনে গণনা করা হয়। তাতেও কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। এ অবস্থায় সকালে বাঁশঝাড়ে গিয়ে এক মহিলা লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার করলে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী গিয়ে লাশ দেখতে পায় এবং পুলিশকে খবর দেয়া হয়।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল হাসনাত খান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি লাশ ঘন বাঁশঝাড়ের মধ্যে পড়ে আছে। অনেক কষ্টে বাঁশ কেটে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। জড়িত সন্দেহে স্বামী ও শশুড়িকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: