মোঃ আশরাফুল আলম

বশেমুরবিপ্রবি (BSMRSTU) প্রতিনিধি

এসএমএসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণযোগ্য সেচ প্রকল্প উদ্ভাবন বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীর

   
প্রকাশিত: ১:১৫ পূর্বাহ্ণ, ২৭ নভেম্বর ২০২১

কৃষিখাতকে একধাপ এগিয়ে নিতে এসএমএস ভিত্তিক সেচ মেশিনকে নিয়ন্ত্রণযোগ্য প্রকল্প তৈরি করেছেন গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মো: ইয়াহইয়া তামিম। দীর্ঘ দুইমাস যাবৎ কাজ করে নির্মাণ করা তামিমের তৈরি প্রকল্পটি ব্যবহার করে দূরবর্তী কোনো স্থানে থেকেও মোবাইল ফোনের এসএমএস এর মাধ্যমে সেচ মেশিনের সুইচ অন- অফ করা এবং নির্ধারিত সময় মাফিক সেচ মেশিন চালু-বন্ধ করা যাবে।

প্রকল্পটি তৈরি ধারণা বিষয়ে তামিম বলেন, প্রথমত এক নিকট আত্মীয়ের প্রয়োজনে এমন একটি যন্ত্র তৈরির ধারণা পাই। নিকট আত্মীয় আমায় বলেছিলেন মোবাইল ফোন দিয়ে বাড়িতে থেকে সেচ পাম্প অন অফ করার কোন সিস্টেম আমি করে দিতে পারবো কিনা? পরর্তীতে তার অর্থনৈতিক সহায়তায় পাবার সম্মতিতে সাহস করে কাজটি শুরু করি।

সেচ প্রকল্পের বিষয়ে তামিম বলেন, এখানে মূলত ডিজিটাল ইলেকট্রনিকস এ কোডিং এর অংশ টুকুই আসল। এই প্রকল্পের ডিভাইসের মধ্যে আরডুইনো মেগা নামে একটা মাইক্রোকন্ট্রোলার আছে, যেটাকে পিসি দিয়ে ইউএসবি ক্যাবলের মাধ্যমে সি প্রোগ্রামিং দিয়ে প্রোগ্রাম করতে হয়। আমার তৈরি প্রকল্পটিতে মোটররের সুইচ কে কন্ট্রোল করার জন্য রিলে নামে এক ধরনের ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক সুইচ ব্যবহার করা হয়েছে, আর এসএমএস এর কন্ট্রোলের জন্য a6 mini gsm মডিউল নামে একটা সিম ডিভাইস ব্যবহার করা হয়েছে। আর এইসবের মূল কন্ট্রোল লজিক টা সেট করতে হয় কোডের মাধ্যমে। আমি কোড করে এভাবে ফাংশন গুলো ইমপ্লিমেন্ট করার চেষ্টা করেছি যাতে করে এসএমএস দিয়ে সুইচ টা কে অন অফ করা যায় এবং টাইমার সেট করা যায়। আর আমি এসএমএস দিলে ডিভাইসটা সুইচ অন করার সাথে সাথে একটা ফিরতি sms রিপ্লাই দেয় যেখানে মোটর টা অন হলো নাকি অফ হলো, টাইমার সেট করা হলে কয়টা থেকে কয়টা পর্যন্ত চলবে এইসব ইনফরমেশন এর একটা কনফার্মেশন এসএমএস ডিভাইস থেকেই আবার ফোনে পাঠাবে।

তামিম আরও বলেন, মূল সুবিধার কথা বলতে গেলে, কৃষক বাড়িতে থেকেই মোটর টা অন অফ করতে পারবে। সাধারণত কৃষি ক্ষেত সমূহ বসত বাড়ি থেকে দূরে হওয়ায় সেচ মৌসুমে মোটর অপারেটরদের জন্য টাইমলি মোটর অন অফ করাটা অনেক ঝামেলার কাজ হয়ে পড়ে। এই প্রকল্প ব্যবহারে মোটর অন অফ করতে কৃষককে বারবার দূরবর্তী কৃষি ক্ষেতের ভেতর মোটর ঘরে যেতে হবে না।

প্রোজেক্টের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বিষয়ে তামিম বলেন, বাজারে ইন্ডিয়ান তৈরী এই ধরনের ডিভাইস কিনতে পাওয়া যায় যেগুলোর দাম ১৪-১৫ হাজার টাকার মতো। আমার বানানো ডিভাইস টা আপাতত ৫-৭ হাজার টাকার ভেতরেই কমপ্লিট হবে। আপাতত এই ডিভাইস টার ভার্সন ২.০ তৈরী করার পরিকল্পনা আছে, যেটার খরচ আনুমানিক দুই হাজার টাকার ভেতর হতে পারে। পরিকল্পনা আছে সেকেন্ড রিভিশন তৈরী করতে পারলে সেখানে অ্যাপ এবং ওয়াইফাই সাপোর্ট থাকবে। আর যদি পর্যাপ্ত সাড়া পাই তাহলে ম্যাসিভ কোয়ান্টিটিতেও প্রোডাকশনে যাবার ইচ্ছা রয়েছে।

প্রসঙ্গত , পূর্বে ঝিনাইদহে এক কলেজ শিক্ষার্থী এরকম একটা প্রকল্পে কাজ করলেও বিস্তারিত দেখে বুঝতে পারি সে খুব ইন্টারেস্টিং কিছু করতে পারেনি। ফোনের ভাইব্রেশন মোটরের সাথে সংযোগ করে কোনো একটা উপায়ে মোটর অন অফ করার ব্যবস্থা করেছে, যেখানে একবার কল দিলে মোটর অন হয় আরেকবার কল দিলে অফ হয় এমনি এক সিস্টেম।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: