প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

পপিকে বিয়ে করতে চাইতেন নায়ক জসিমের ছেলে

   
প্রকাশিত: ৪:০৯ অপরাহ্ণ, ২৭ নভেম্বর ২০২১

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় ‘অ্যাকশন হিরো’ জসিমকে জীবদ্দশায় অনেক সহঅভিনয় শিল্পীরা ‘ভয় পেতেন’ বলে জানালেন তার ছোট ছেলে এ কে রাহুল। বাবাকে নিয়ে স্মরণে জসিমের ছেলে জানান, বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় ’অ্যাকশন হিরো’ জসিমকে জীবদ্দশায় অনেকেই ’ভয় পেতেন’। জ্যেষ্ঠ অভিনয়শিল্পী হিসেবে তার সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে অনেক অভিনয়শিল্পীর মধ্যে নার্ভাসনেস কাজ করত; ফলে অনেকেই ভয় পেতেন।

ছোটবেলায় বাবার হাত ধরে তার শুটিং সেটে যেতেন রাহুল। সেই স্মৃতি নিয়ে বাবার সম্পর্কে রাহুল বলেন, বাবা সব কাজ খুব সিরিয়াসলি নিতেন। অ্যাকশন দৃশ্যগুলো বাস্তবিকভাবে ফুটে তুলতে চাইতেন। একটা ঘুষি মারতে হলেও ব্যাপারটা রিয়েলস্টিকভাবে তুলে আনার চেষ্টা করতেন। তার ধারণাও ছিল, জোরে মারতে হবে, বেশি ফেইক করা যাবে না। ফলে সবাই খুব ভয়ে থাকতেন।

রাহুল আরও বলেন, বাবার সাথে আসলে আমার তেমন বেশী স্মৃতি নেই। কারণ আমি তখন অনেক ছোট ছিলাম। তবে আমার এখনও মনে পরে বাবা বাসায় আসলেই তার গাড়ির হর্ণ শুনেই আমি বাবার কাপড় নিয়ে দৌড়ে আসতাম। বাবা বাসায় লুঙ্গি পড়তেন। পপিকে বিয়ে করার ইচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের বাসায় অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী আসতেন। যেমন, শাবানা আন্টি, রোজিনা আন্টি, মিশা আংকেল, শাকিব আংকেল, পপি আন্টি সহ অনেকেই। পপি আন্টি আসলেই আমি বলতাম তাকে বিয়ে করবো আমি।

জমিসের তিন ছেলেরই সিনেমায় নয় সঙ্গীতে আগ্রহ। তাই ব্যান্ডদল গঠন তাদের। জাসিমপূত্র সামী মিউজিশিয়ান হওয়ার গল্পও বললেন। কেনো গানের প্রতি আগ্রহ সে কথা জানিয়ে বললেন, গান শুনতে শুনতেই এক সময় নিজেদের বন্ধুবান্ধব মিলে একটি ব্যান্ড দল গড়ার চিন্তা মাথায় আসে। তিনি জানান, ৫ জন সদস্য নিয়ে ২০০৭ সালে ব্যান্ডদল ‘ওন্ড’ তৈরি হলেও ২০১১ সাল থেকে নতুনভাবে ৪ সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে দলটি। ‘ওন্ড’ ব্যান্ডের প্রথম অ্যালবাম ‘ওয়ান’ প্রকাশ হয়েছিল ২০১৪ সালে। দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘টু’ প্রকাশ হয়েছিল ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে৷

তাদের রক মেটাল ব্যান্ডদলের নাম ‘ওন্ড’ (Owned)। জসিমের জৈষ্ঠপুত্র সামী (ড্রামার) ও মেঝছেলে রাতুল (ভোকালিস্ট, বেজ) এবং আরও দুজন গিটারিস্ট মিলে মোট ৪ জনে গড়েছেন এই দলটি। যার নেতৃত্বে আছেন সামী।

না.হাসান/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: