প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

বাংলাদেশের পতাকা বিকৃতির ধৃষ্টতা পাকিস্তান হাইকমিশনের!

   
প্রকাশিত: ১১:৫০ অপরাহ্ণ, ২২ জুলাই ২০২২

গ্রাফিক্সের মাধ্যমে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার সঙ্গে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকাকে একীভূত করে প্রকাশ করেছে ঢাকায় অবস্থিত পাকিস্তান হাইকমিশন। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বেলা ১টা ৩৮ মিনিটে ঢাকার পাকিস্তান হাইকমিশনের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের কভার ফটো হিসেবে ওই গ্রাফিক্সটি পোস্ট করা হয়। ছবিটি পোস্ট করার পরপরই আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অনেকে এই ঘটনাকে পাকিস্তানের ধৃষ্টতা বলে অভিহিত করেছেন। ছবিটি পোস্ট করার পর শুক্রবার (২২ জুলাই) সমালোচনামূলক বক্তব্যে ভরে যায় কমেন্ট বক্স। কিন্তু তারপরই কমেন্টস অপশন বন্ধ করে দেয়া হয়।

মনির নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমার লাল সবুজের পতাকার সঙ্গে পাকিস্তানি পতাকা সংযুক্ত করে বিকৃতি করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পার্থসারথী নামের একজন লিখেছেন, নিঃসন্দেহে এটা জাতীয় পতাকার অবমাননা। সিয়াম হোসেন নামের একজন লিখেছেন, পশ্চিম বাংলাদেশের নতুন পতাকা।

দ্বীপ রায় নামে একজন লিখেছেন, আগে ১৯৭১ সালের গণহত্যার জন্য ক্ষমা চান। আমির হামজা নামে অপর এক ফেসবুক ব্যবহারকারী কিছুটা ব্যঙ্গ করে পাকিস্তান হাইকমিশনের উদ্দেশে প্রশ্ন করেছেন, কি, আফসোস হয়?

জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, এ বিষয়ে আমি এখনও কিছু জানি না। তাই এটি নিয়ে আপাতত কোনো মন্তব্য করছি না।

এদিকে, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা বিকৃত করে পাকিস্তান হাইকমিশনের ফেসবুক পেজের কভার ফটো হিসেবে পোস্ট করার মাধ্যমে অবমাননা করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। শুক্রবার (২২ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতি এ প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা ও গণধর্ষণে জড়িত পাকিস্তান নামক কুলাঙ্গার রাষ্ট্রের ঢাকাস্থ পাকিস্তান হাইকমিশন তাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে বিকৃত করে অবমাননা করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সরকারের কাছে দাবি, অবিলম্বে পাকিস্তান হাইকমিশনের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

ইমদাদ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: