প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ হাবিবুর রহমান

নড়াইল প্রতিনিধি

মহানবীকে (সা:) কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, আদালতে আকাশ সাহার স্বীকারোক্তি

   
প্রকাশিত: ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ, ২৭ জুলাই ২০২২

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া সাহাপাড়ার কলেজছাত্র আকাশ সাহা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে মহানবীকে (সা:) নিয়ে কটূক্তি করে পোস্ট দেওয়ার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। গত ২০ জুলাই রিমান্ড শেষে আকাশ সাহা তার পরিচালনাধীন ফেসবুক আইডি থেকে নিজেই মহানবীকে (সা:) কটুক্তিমূলক পোষ্ট দিয়েছেন মর্মে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন।

আকাশ সাহা গত ১৫ জুলাই ফেসবুকে মহানবীকে (সা:) নিয়ে কটূক্তি করে পোস্ট দেয়। ধর্ম অবমাননার অভিযোগ এনে পরদিন দিঘলিয়া গ্রামের সালাউদ্দিন কচি বাদী হয়ে লোহাগড়া থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় অভিযুক্ত আকাশ সাহাকে খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আকাশ সাহা উপজেলার নবগঙ্গা ডিগ্রি কলেজের ছাত্র ও দিঘলিয়া গ্রামের সাহাপাড়ার আশোক সাহার ছেলে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ১৭ জুলাই লোহাগড়া আমলী আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: মোরশেদুল আলম এর আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আদালত শুনানী শেষে আকাশ সাহার ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে ২০ জুলাই একই আদালতে আকাশ সাহা তার পরিচালনাধীন ফেসবুক আইডি থেকে নিজেই মহানবী হযরত (সা:) কটুক্তিমূলক পোষ্ট দিয়েছেন মর্মে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী
দিয়েছেন।

এ ঘটনার জেরে সাহাপাড়ার সনাতন ধর্মালম্বিদের বাড়িঘর, দোকান ও মন্দির ভাঙচুর এবং একটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষুব্ধ জনতা। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে লোহাগড়া থানায় অপর একটি মামলা করেন। সে মামলায় ভিডিও ফুটেজের ভিত্তিতে মোট ১০ জনকে আটক করে পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মিজানুর রহমান আটককৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করে।

আদালত প্রত্যেককে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে আসামীদের জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় (পিপিএম বার)। এখন ওই এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান জেলা পুলিশের এই কর্মকর্তা।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: