প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

জুলফিকার আলী ভূট্টো

নীলফামারী প্রতিনিধি

বিতর্কিতদের পদে চান না তৃনমুলের নেতাকর্মীর

   
প্রকাশিত: ৮:০৭ অপরাহ্ণ, ২৭ জুলাই ২০২২

নীলফামারীর জলঢাকায় দীর্ঘ ১৮ বছর পর আগামী ৩০ জুলাই এবং ডোমারে দীর্ঘ ৯বছর পর আগামী ৩১ জুলাই উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

আওয়ামীলীগের সম্মেলনকে ঘিরে দু উপজেলায় পদ প্রত্যাশী ও নেতা কর্মীদের মাঝে উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে। তবে বিগত দিনে নৌকা বিরোধী বিতর্কিতদের কোন পদ পদবীতে দেখতে চায়না তৃনমূলের নেতা কর্মীরা। ইতিমধ্যে পদ প্রত্যাশীরা ইউনিয়নের নেতা কর্মীদের সাথে দফায় দফায় আলোচনা সভা ও মতবিনিময় করছেন এবং নিজেকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

জলঢাকা উপজেলার আসন্ন সম্মলনকে ঘিরে সভাপতি পদে একজন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জনের নাম শোনা যাচ্ছে। তারা হলেন, সভাপতি পদে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা এবং সাধারণ সম্পাদক পদে খুটামারা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবু তাহের শামিম, উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক সাবের হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা একে আজাদ ও নুরুজ্জামান মাষ্টার। গত ২৪ জুলাই রাতে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় জেলা নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে হট্টগোল ও বাকবিতন্ডায় সভা পন্ড হয়ে যায়। এ ঘটনায় পরদিন সাধারণ সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেলকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়। জলঢাকা উপজেলা আওয়ামীলীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় গত ২০০৪ সালের ২৯ নভেম্বর। ওই সম্মেলনে আনছার আলী মিন্টু সভাপতি নির্বাচিত হন। দীর্ঘদিন পর ২০১৯ সালে তাকে দল থেকে অব্যাহতি প্রদান করায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা।

অপরদিকে ডোমার উপজেলার আসন্ন সম্মেলনে সভাপতি পদে ৪জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ৩জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। তারা হলেন সভাপতি পদে উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সভাপতি খায়রুল আলম বাবুল, সহ-সভাপতি সাবেক ডেপুটি এট্রর্নি জেনারেল এ্যাডভোকেট মনোয়ার হোসেন, সাবেক রাষ্ট্রদূত আমিনুল ইসলাম সরকার ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ময়নুল হক। সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন ৩জন। উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক চৌধুরী, সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদ আহমেদ শান্তু ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক সরকার।

দলীও সূত্র জানায়, এবারে কাউন্সিলে ৪২৭ জন কাউন্সিলর অংশ নেবেন। কাউন্সিলরদের সমর্থনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন। কাউন্সিলরদের সমর্থন পেতে ইউনিয়ন নেতা কর্মীদের সাথে আলোচনা ও মতবিনিময় করে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ডোমার উপজেলা আওয়ামীলীগের সর্বশেষ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় ২০১৩ সালের ৬জুলাই। সেই কমিটি অনুমোদন পায় ২০১৯ সালের ১৫জুন। দীর্ঘ ৯ বছর পর কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমরা কোন বিতর্কিত নেতা চাইনা। একজন স্বচ্ছ নেতা চাই। বোড়াগাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল আহমেদ ডন বলেন, আমরা নৌকা বিরোধী বিতর্কিত নেতাকে পদে দেখতে চাই না। যে কোন নির্বাচন এলেই কয়েকজন নেতা নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করেন। এমন নেতাদের এবারে বর্জন করবেন এবং ছাত্র জীবন থেকে যারা আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত এমন নেতাদের নির্বাচিত করবেন তৃণমূলের নেতা কর্মীরা।

কেন্দ্রীয় যুব মহিলালীগ নেত্রী সরকার ফারহানা আকতার সুমি বলেন, যাকে দিয়ে দল গতিশীল হবে এমন নেতৃত্ব চাই।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: