প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

পাচাঁরের ৩ দিনের মধ্যে ৪ কিশোরী উদ্ধার, আসামি গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ৩:০৬ অপরাহ্ণ, ২৯ জুলাই ২০২২

মোঃ শাহালাল ইসলাম, রাজশাহী থেকে: রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানার মহিষ বাথান এলাকা হতে ফুসলিয়ে পাচাঁর এবং যৌন কার্যকলাপের জন্য নিয়ে যাওয়ার ৩ দিনের মধ্যে ৪ কিশোরী (স্কুল শিক্ষার্থী) কে উদ্ধার করেছে আরএমপি রাজপাড়া থানা পুলিশ। এসময় গ্রেফতার হয়েছে পাচাঁরকারী এক নারী। গ্রেফতারকৃত আসামি মোসাঃ চাঁদনী (৩০) রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানার কোর্ট বুলনপুরের মোঃ সুরুজ আলীর স্ত্রী। সে নগরীর মহিষ বাথান এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ জুলাই ২০২২ সকালে ৪ কিশোরী (স্কুল শিক্ষার্থী) স্কুলে যাওয়ার কথা বলে বাড়ী হতে বের হয়। কিন্তু বিকেলে তারা বাড়ী ফিরে না আসলে তাদের অভিভাবকরা খোঁজ খবর শুরু করে। খোঁজ-খবরের এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন তাদের জানায়, চাঁদনী নামের এক নারী-সহ ঐ চার কিশোরীকে নগরীর মহিষ বাথান কলোনীর উত্তর পার্শ্বে গেট দিয়ে যেতে দেখেছে।

পরবর্তীতে চাঁদনীর স্বামীর কাছে গিয়ে জানতে পারে চাঁদনী কাউকে না জানিয়ে প্রায় সময় ঢাকায় যায় এবং ১০-১২ দিন পর আবার ফিরে আসে। চাঁদনীর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। কিশোরীদের অভিভাবক দের ধারণা আসামি চাঁদনীসহ তার সহযোগিরা তাদের পাচাঁর এবং যৌন কার্যকলাপের জন্য নিয়ে গেছে। এক কিশোরীর পিতার এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু হয়।

মামলা রুজুর পরিপ্রেক্ষিতে রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে এসআই মোঃ সজীবুল ইসলাম ও তার টিম আসামিদের অবস্থান সনাক্ত করে গ্রেফতার ও পাচাঁর হওয়া কিশোরীদের উদ্ধারে অভিযান শুরু করেন।

পরবর্তীতে রাজপাড়া থানা পুলিশের ঐ টিম আজ ২৯ জুলাই ২০২২ (২৮ জুলাই দিবা গত) রাত সোয়া ১ টায় তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে ঢাকা জেলার সাভার মডেল থানার পূর্ব রাজাসন এলাকা হতে সাভার মডেল থানা পুলিশের সহায়তায় আসামি চাঁদনীকে গ্রেফতার করে এবং তার হেফাজত হতে ৪ কিশোরী (স্কুল শিক্ষার্থী)কে উদ্ধার করে।

উদ্ধারকৃত স্কুল শিক্ষার্থীরা হলো, মহিষবাথান উত্তরপাড়া এলাকার রাজনের মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী তিশা (১৩), একই এলাকার শাহজামালের মেয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী আরজু খাতুন (১৪), বাবলুর মেয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী শাকিলা এবং বাদশার মেয়ে হালিমা খাতুন।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামি যৌন কার্যকলাপের জন্য কিশোরী (স্কুল শিক্ষার্থী)কে পাচাঁরের কথা স্বীকার করে গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: