প্রচ্ছদ / ক্যাম্পাস / বিস্তারিত

বোর্ড সিলেবাসের বাইরে থেকে গুচ্ছের প্রশ্ন

   
প্রকাশিত: ৮:১৭ অপরাহ্ণ, ৩১ জুলাই ২০২২

ছবি: প্রতিনিধি

সালাউল্লাহ ফাহাদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: ২০২১ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়া হলেও গুচ্ছভুক্ত ২২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষায় বোর্ডের নির্ধারিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের বাইরে থেকে প্রশ্ন করার অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বলছেন, এইচএসসির পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হওয়ায় তাদের পূর্ণাঙ্গ সিলেবাসের উপর প্রস্তুতি ছিলো না। তবে গুচ্ছের উচ্চতর গণিত, জীববিজ্ঞান ও বাংলার প্রশ্ন হয়েছে নির্ধারিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের বাইরে।

জীববিজ্ঞান অংশের ৬, ৮, ৯, ১১, ১২, ১৪, ১৫, ১৬, ১৮ ও ২৫ নং প্রশ্ন এবং উচ্চতর গণিত অংশের ১০, ১১, ১২, ১৭, ১৮, ২১ ও ২৩ নং প্রশ্ন বোর্ড নির্ধারিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের বাইরের অধ্যায় থেকে এসেছে।

ইডেন কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া তনিমা হাদি বলেন, ‘পদার্থ ও রসায়নের প্রশ্ন সুন্দর হয়েছে। তবে জীববিজ্ঞান, উচ্চতর গণিত ও বাংলার প্রশ্ন সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের বাইরে থেকে এসেছে। ভেবেছিলাম সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের মধ্য থেকেই প্রশ্ন হবে।’

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ঝিনাইদহ থেকে আসা সোনিয়া খাতুন বলেন, ‘অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় দুই একটা শর্ট সিলেবাসের বাইরে থেকে আসলেও গুচ্ছ পরীক্ষায় অনেক বেশি বাইরের প্রশ্ন আসছে। ২২ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা একসাথে দিলাম আমাদের আগেই জানানো উচিত ছিলো ফুল সিলেবাসে পরীক্ষা হবে।’

একই কেন্দ্রে অংয় নেওয়া রবিন বলেন, ‘গণিত ৫০ শতাংশেরও অধিক প্রশ্ন শর্ট সিলেবাসের বাইরে থেকে আসছে। আমাদের যদি আগেই বলা হতো যে প্রশ্ন ফুল সিলেবাস থেকে হবে তাহলে আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে পারতাম।’

এবিষয়ে গুচ্ছের সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক ও জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক বলেন, ‘আমরা বোর্ড থেকে যে সিলেবাস পেয়েছি সে অনুযায়ী প্রশ্ন করা হয়েছে। প্রশ্নের মডারেশনের দায়িত্বে যারা ছিলো তারাও সেভাবে প্রশ্ন সাজিয়েছেন। তারপরও কারও যদি অভিযোগ থাকে আমাদের লিখিত দিবে, কোনো প্রশ্ন বোর্ডের সিলেবাসের বাইরে থেকে হয়েছে লিখে জানাবে আমাদের। যদি তেমন হয়, আমরা তখন সিদ্ধান্ত নিবো।’

তুহিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: