প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ শাকিল শেখ

সাভার করেসপন্ডেন্ট

শিশু ইভা হত্যাকান্ডে প্রতিবেশী টেম্পু চালক গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ, ২ আগস্ট ২০২২

সাভারের আশুলিয়ায় গোসলখানায় ৩ বছরের কন্যাশিশু ইভাকে ব্লেড দিয়ে গলা কেটে হত্যাকান্ডের ঘটনায় বাবুল মোল্লা (৪৫) নামে এক প্রতিবেশীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (০১ আগস্ট) রাত ১০ টায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার এসআই মাসুদ আল মামুন। এর আগে সোমবার সকালে আশুলিয়ার ভাড়া বাসা থেকে বাবুলকে গ্রেফতার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ। পরে তাকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠালে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গ্রেফতারকৃত বাবুল মোল্লা (৪৫) ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা থানার আনন্দ নগর গ্রামের মৃত মোন্তাজ মোল্লার ছেলে। তিনি আশুলিয়া থানার ইয়ারপুর ইউনিয়নের কোন্ডলবাগ এলাকার হেলাল উদ্দীনের বাড়ির ভাড়াটিয়া। তিনি পেশায় টেম্পু চালক। একই বাড়িতে পার্শ্ববর্তী কক্ষে বসবাস করতেন গ্রেফতারকৃত ও নিহত শিশু।
নিহত ইভা লক্ষীপুর জেলার রায়পুর থানার চরআবাবিল গ্রামের শাহিন হোসেনের মেয়ে। গার্মেন্টসকর্মী বাবা-মায়ের সাথে ইভা এই ভাড়া বাসায় বসবাস করতো।

বাবা-মা দুইজনই আশুলিয়ায় গার্মেন্টসে চাকরী করেন। গত এক বছর ধরে এই বাড়ির একটি রুম ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছে। বাবা-মা চাকরিতে গেলে ছেলে সাকিব (৮) ও ইভা (৩) বাসাতে থাকতো।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, টিনসেট বাড়িতে প্রায় ১০ টি কক্ষের ভাড়াটিয়াদের জন্য বাইরে যৌথ ৪ বাথরুম ও ২টি গোসলখানা রয়েছে।

দুপুরে শিশুর খালাতো ভাই তাকে রুমে না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুঁজি করে। পরে গোসলখানায় গিয়ে দরজা খুলতেই দেখে শিশু ইভার মরদেহ পড়ে আছে। শিশুর বাবা-মাকে ও পুলিশ খবর দেয়া হয়।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনার পর থেকে প্রতিবেশীসহ বেশ কয়েকজনকে আমরা নজরদারিতে রেখেছিলাম। প্রাথমিক তদন্ত শেষে ও সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে বাবুল মোল্লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে এসআই মাসুদ আল মামুন বলেন, গ্রেফতারকৃত বাবুল মোল্লার বিষয়ে ইতিমধ্যে আমরা সুনির্দিষ্ট কিছু তথ্য পেয়েছি। যা বিশ্লেষণ করে তার জড়িত থাকার বিষয়টি উঠে এসেছে। আসামীর রিমান্ড শেষে ও আরও তদন্ত স্বাপেক্ষে হত্যার কারণ এবং ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই মঙ্গলবার ইয়ারপুর ইউনিয়নের কোন্ডলবাগ এলাকায় হেলাল উদ্দীনের বাড়িতে একটি গোসলখানায় শিশু ইভাকে (০৩) ব্লেড দিয়ে গলা কেটে হত্যা করা হয়। জব্দ করা হয় হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ব্লেড। ওইদিনই নিহতের পরিবার অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: