আরিফ জাওয়াদ

ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাবির মৌলিক গবেষণা ও উদ্ভাবন ক্যাম্পাস নির্মিত হবে পূর্বাচলে

   
প্রকাশিত: ৪:৩০ অপরাহ্ণ, ২ আগস্ট ২০২২

রাজধানী মহানগরীর অদূরে পূর্বাচল এলাকায় ঢাবির জন্য নির্ধারিত স্থানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মৌলিক গবেষণা ও উদ্ভাবনের জন্য ‘মৌলিক গবেষণা ও উদ্ভাবন’ নামে নতুন একটি ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠার কথা জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে বাংলা ভাষায় সিমিলারিটি চেকিং (প্লেজিয়ারিজম) ‘ডিইউবিডি২১’ নামক অ্যাপটি উদ্বোধনকালে তিনি এই কথা বলেন।

অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় পূর্বাচলে রাজউক আমাদের যে জায়গাটি দিয়েছে সেখানে আমরা আমাদের সম্পূর্ণ একটি ভিন্ন ক্যাম্পাস তৈরি করা হবে। যেখানে গতানুগতিক আবাসিক সুবিধা বা শ্রেণিকক্ষ থাকবে না। সেটিকে আমরা এক্সক্লুসিভ ইনোভেশন ক্যাম্পাসে রূপান্তর করব। যেখানে শুধুই গবেষণা কার্যক্রম পরিচালিত হবে। এছাড়া কক্সবাজারে ব্লু ইকোনোমির জন্য সেখানেও গবেষণা ও উদ্ভাবনী ক্যাম্পাস গড়ে তোলা হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়টি এখন আমাদের টিচিং বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হচ্ছে। সুতরাং এখন আমাদের ‘স্ট্যাট অফ দি আর্ট ল্যাব’ প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবগুলোকে যে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছিল তা হলো স্নাতকের শিক্ষার্থীদের জন্য। বর্তমানে টিচিং বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন পাঠনের সাথে সহায়ক ওই ল্যাবগুলোকে মানসম্পন্ন ও মৌলিক আবিষ্কারের জন্য উপযোগী করতে হবে।

সে দিকটি বিবেচনায় পূর্বাচলে যে ক্যাম্পাসটি করা হবে সেখানে এক্সক্লুসিভলি সব রিসার্স পরিচালিত হবে। সেটিতে বায়োসাইন্স, ফার্মেসী, ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজ্ঞান, মানবিক, কলার সব এক্সক্লুসিভ গবেষণা পরিচালিত হবে বলেও জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: