জাবিতে খুনী ও ধর্ষণ প্রতিরোধ দিবস পালিত

   
প্রকাশিত: ১০:৫৬ অপরাহ্ণ, ২ আগস্ট ২০২২

মোঃ আবু দারদা লিমন, জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে খুনী ও ধর্ষণ প্রতিরোধ দিবস পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাত আটটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে প্রাঙ্গনে প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এ দিবসটি পালিত হয়।

এসময় ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আনিছা পারভীন বলেন, ‘আগে যারা ধর্ষণ নিপীড়নের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছে তাদের তেজ্ব দীপ্ত আন্দোলনের ধারা আমরা ধরে রেখেছি। এই আন্দোলনের জের ধরে যে জোয়ার তৈরি হয়েছিল, তাতে ধর্ষক, নিপীড়ক, খুনীরা দুর্বার প্রতিরোধের মুখে ক্যাম্পাস ছাড়তে বাধ্য হয়েছে। আপনারা জানেন আমরা যখন শিক্ষার্থী ছিলাম তখনও এই দিনটি উদযাপনে আমরা লজ্জিত হই নি। সবসময়ই ক্ষমতাবানরা চেয়েছে এই দিনটি যাতে উদযাপিত না হয়।’

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক কনোজ কান্তি রায় বলেন, ‘যারা ক্ষমতার ডানা ঘাড়ে করে উড়ে বেড়ান, তারা ভাবেন তাদের কেউ ধরতে পারবে না। তাদের জন্য এই আন্দোলন একটি শিক্ষা। আজকে যখন নোয়াখালীতে চার সন্তানের মা’কে ধর্ষন করা হয়। আমরা তখন লংমার্চ করতে যাই। তখনও ছাত্রলীগ আমাদের উপর হামলা করে। অন্যায় যত ছোট হোক না কেন, তার প্রতিবাদ হওয়া উচিত।’

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক অমর্ত্য রয় বলেন, ‘ইতিহাস মানেই শুধু অতীত না, ইতিহাস মানে বয়ে চলা। সকল অন্যায় অবিচার এর বিরুদ্ধে দাড়িয়েছি বলেই আজকে আমরা এখানে দাড়াতে পেরেছি। আমরা খেয়াল করেছি যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেল ঠিকমত কাজ করছে না। আমরা এসবের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ জারি রাখবো’

সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সৌমিক বাগচী বলেন, ‘আমাদের একটি গৌরবজ্জ্বল ইতিহাস আছে। একারনেই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আলাদা। বারবার আমরা অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছি, এই প্রতিবাদ,প্রতিরোধই জাহাঙ্গীরনগরকে আলাদা করেছে। যৌন নীপিড়ন বিরোধী সেল এখনও কার্যকর হতে পারে নি, প্রশাসনের গাফিলতির কারনে এমনটা ঘটছে। এই দিনটির চেতনা যেন অন্যান্য চেতনার মত ভুলুন্ঠিত না হয়। প্রত্যেকটা দিনে আমাদের শুদ্ধতার চর্চা বজায় রাখতে হবে।’

উল্লেখ্য, শতাধিক নারী ধর্ষন ও নিপীড়নকারী জসিম উদ্দিন মানিক ১৯৯৯ সালের ২ আগস্ট আন্দোলনের মুখে ক্যাম্পাস ছাড়তে বাধ্য হয়। সেই থেকে ২ আগস্টকে ‘খুনি-ধর্ষক প্রতিরোধ দিবস’ হিসেবে পালন করা হচ্ছে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: