প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

দীর্ঘ ১১১ মাস পর মায়ের কাছে ফিরলেন ভারতীয় ক্রিকেটার

   
প্রকাশিত: ৫:২৮ অপরাহ্ণ, ৪ আগস্ট ২০২২

৯ বছরের বেশি সময় বেশি সময় থেকে মায়ের থেকে দূরে ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটার কুমার কার্তিকেয়া সিং। ২০১৩ সালের এপ্রিলে মাত্র ১৫ বছর বয়সে কেউ একজন হয়ে ওঠার লক্ষ্যে ঘর ছেড়েছিলেন তিনি। উদ্দেশ্য বড় ক্রিকেটার হবেন, নিজের পায়ে দাঁড়াবেন। এর আগে ফিরবেন না বাড়ি। সন্তানের এমন চাওয়া বাবা শ্যাম মাত সিং সহজে গ্রহণ করলেও মায়ের মন মানে না। যখনই কার্তিকেয়ার সঙ্গে কথা বলতেন আবেগে ভেসে যেতেন মা সুনিতা সিং। তবে বাবার সঙ্গে যখনইউ কথা হতো, তিনি বলতেন,‘ঘর যখন ছেড়েছো, কিছু একটা অর্জন করে তবেই ফিরে আসো।’

আর সবশেষে নিজের সপ্ন পূরণে সক্ষম হয়েছেন তিনি। আর তাই তো ঘর ছাড়ার পর ৯ বছর ৩ মাসের কঠোর সাধনায় ক্রিকেটার হিসেবে পায়ের নিচে মাটি শক্ত করে ফিরলেন ঘরে। দীর্ঘ ১১১ মাসের অপেক্ষা শেষে প্রথমবারের মতো মায়ের হাতের স্পর্শ পেলেন কার্তিকেয়া।

সম্প্রতি  ভারতীয় এই ক্রিকেটার দীর্ঘ বিরতি শেষে মায়ের সঙ্গে মিলিত হয়ে সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে প্রকাশ করে নিজের এই ত্যাগের কথা জানিয়েছেন। টুইটারে কার্তিকেয়া মায়ের সঙ্গে ছবি দিয়ে লেখেন, ‘আমার পরিবার ও মায়ের সঙ্গে দেখা হলো ৯ বছর ৩ মাস পর। অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না।’ এই লম্বা সময়ের মধ্যে বাড়িতে ফেরার সুযোগ পেয়েছিলেন কার্তিকেয়া। তবে বলার মতো খুব বড় কিছু অর্জন করতে পারেননি বলে বাড়ি ফেরেননি। এক্ষেত্রে কার্তিকেয়ার বাবা শ্যাম সিং রেখেছিলেন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা।

এই দীর্ঘ সময়ে বাসার ও নিজের মায়ের মায়ের কাছে ফিরে যাবার অনেক সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। কার্তিকেয়া নিজের এই সংগ্রামের গল্প ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘বাড়িতে যাওয়ার সময়-সুযোগ হয়েছে বটে। তবে যখনই বাবার সঙ্গে কথা হতো, তিনি বলতেন ‘ঘর যখন ছেড়েছো, কিছু একটা অর্জন করে তবেই ফিরে আসো।’ আমি স্রেফ একটি কথাই বলেছি, ‘আচ্ছা।’ এবং যেহেতু এটা বলেছি, আমি বাড়ি যাইনি। ঠিক করেছিলাম, কোনো কিছু অর্জন করতে পারলেই বাড়ি ফিরব।’

আর তাইতো  অবশেষে ভারতীয় ক্রিকেট পাড়ায় নিজের নাম প্রতিষ্ঠা করে, শিরোপা জয়ের উল্লাসে ভেসে নিজের পায়ের তলার মাটি শক্ত করে তবেই ফিরেছেন কার্তিকেয়া। এই সময়ের মধ্যে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে সুযোগ পেয়েছেন। মধ্য প্রদেশের হয়ে জিতেছেন রঞ্জি ট্রফিও। এই সময়ের মধ্যে ২০১৮ সালে প্রথমবারের মতো মধ্য প্রদেশের হয়ে লিস্ট ‘এ’ ও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক হয় কার্তিকেয়া। এরপর খেলেন আইপিএলও। মুম্বাইয়ের হয়ে মাঠে নেমে নিজের সামর্থ্যেরও জানান দেন এই বাঁহাতি স্পিনার। ৪ ম্যাচে ৫ উইকেট শিকার করেছেন তাও মাত্র গড়ে ২০। আর এই বছরতো প্রথমবারের মতো রঞ্জিতে মধ্য প্রদেশকে জিতিয়েছেন তাদের ইতিহাসের প্রথম শিরোপাও।এই লম্বা সময়ে মাকে খুব মিস করেছেন কার্তিকেয়া। তবে মায়ের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলার সময় দুইজনই আবেগাপ্লুত হতেন। তাই ভিডিও কল দেওয়াও বন্ধ করে দিয়েছিলেন এই ক্রিকেটার।

সাক্ষাতকারে  কার্তিকেয়া আরও জানান, ‘এই সময়ের মধ্যে ভিডিও কলে কথা বলা বন্ধ করে দেই। কারণ, কল করলে মা শুধু কান্না করতেন। আবেগপ্রবণ হয়ে যেতেন। এ জন্য ফোনে শুধু কথা বলতে শুরু করি, ভিডিও নয়। রঞ্জি জয়ের পর অবশ্য ভিডিও কলে কথা বলেছি। এর আগে আইপিএলে ডাক পাওয়ার পর ভিডিও কল করেছিলাম, আর ২০১৮ সালে রঞ্জিতে প্রথমবার সুযোগ পাওয়ার পর করেছিলাম ভিডিও কল।’

রেজানুল/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: