প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ জামাল বাদশা

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

তেলের মূল্য বৃদ্ধি; লালমনিরহাটের সড়কে যানবাহন চাপ কম

   
প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ, ৬ আগস্ট ২০২২

হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটে সকাল থেকেই সড়ক মহাসড়কে কমেছে যানবাহনের চাপ। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাতে দেশে ডিজেল, প্রেট্রোল, অকটেনের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনটি শুক্রবার রাত ১২ টার পর থেকে কার্যকর হয়েছে। সংবাদটি প্রচার হওয়ায় রাত ১১ টার পর থেকে তেল পাম্প গুলো তেল বিক্রি বন্ধ করেছিলো। জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধের কারণে পেট্রোল ডিপো গুলোতে ভীর করেছিলো হাজার হাজার মোটরযান। অনেক স্থানে তেল না পাওয়ায় ঘটেছে হাতাহাতির ঘটনাও। কিছু কিছু স্থানে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে নির্দিষ্ট পরিমানের তেল বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে কয়েকটি ডিপো।তবে রাত ১২ টার পরপরই নতুন মূল্যে বিক্রি শুরু করে পাম্প কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (৬ আগস্ট) সরেজমিনে জেলার বিভিন্ন স্থানে সরেজমিনে দেখা গেছে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের হয়নি মানুষ। যারা বের হয়েছেন তাদের অনেকেই গণপরিবহনে চলাচলের জন্য চেষ্টা করেও হচ্ছেন ব্যর্থ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাস চালক জানান, হঠাৎ তেলের দাম বেড়েছে আর ভাড়া বাড়েনি নি তাই আজ গাড়ি বের করার অনুমতি দেয়নি গাড়ির মালিক।বসে আছি দিন করে দিনে খাই খুবই চিন্তায় আছেন বলে বেশিকিছু বলতে আগ্রহ নেই বলে জানান তিনি।

এদিকে সড়কে বের হওয়া এক বাসের চালকের সাথে কথা হলে তিনি জানান,বাসের ভাড়া আগের মত আছে তবে সকালে তেল বেশি দামে কিনেছি,লোকসান জেনেও রাস্তায় গারি চালাচ্ছি তবে আজকের পর ভাড়া না বাড়লে আর চালাবো না। শহরের মিশনমোড় চত্বরে রিক্সা চালক সফিকুল জানান, আজ রাস্তায় গাড়ি নেই তেমন তাই যাত্রী চাপ বেশি, সুযোগে ভাড়াও নিচ্ছি সবসময় তো এমন থাকে না।

জেলার আদিতমারী উপজেলার সাপ্টিবাড়ী এলাকার এলাকার বাসিন্দা মহুবর জানান,সকালে ছেলে আমার মোটরসাইকেল নিয়ে নিয়মিত প্রাইভেট পড়তে যায়, আজ দেইনি।বলেছি- আমরা তোদের মত বয়স থাকতে হেটে গিয়েছি সবজায়গায়। মুলত পেট্রোল এর দাম বেশি হয়েছে তাই মোটরসাইকেলটি ছেলেকে দিলাম না।

বিনিময় ফিলিং স্টেশনে পেট্রোল নিতে ব্যক্তি সুরেশ রায় জানান, গতকাল রাত ১১টার দিকে দাম বাড়বে শুনে পাম্পে এসেছিলাম। অতিরিক্ত ভীড়ে নিতে পারিনি। আজ জরুরি কাজে বাহিরে যেতে হবে তাই তেল নিচ্ছি তবে বেশি দামে। আয় বাড়েনি ব্যয় বাড়ছে, জমা টাকা শেষে ঋণ করে খাওয়া শুরু করেছ। কি করে কি খাবো বুঝতে পারছিনা।

তেলের জন্য গতরাতে সিরিয়াল দিয়েই না পেয়ে আক্ষেপ করে মোটরসাইকেল আরোহী কাওসার মাহমুদ জানান, মোটরসাইকেলটা বিক্রি করবো। বাড়িতে সাইকেল আছে সেটা দিয়েই চলতে হবে আরকি। কারণ এত দামের তেল কেনার মত আয় নেই আমার।

এর আগে, শুক্রবার দিনগত রাতে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দেয় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। ঘোষণা অনুযায়ী, প্রতি লিটার ডিজেল ও কেরোসিনে দাম বেড়েছে ৩৪ টাকা, অকটেনে ৪৬ টাকা এবং পেট্রলে বেড়েছে ৪৪ টাকা। দাম বাড়ার পর প্রতি লিটার ডিজেল ১১৪ টাকা, কেরোসিন ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ টাকা ও পেট্রল ১৩০ টাকায় কিনতে হবে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: