প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে বাংলাদেশেও কমবে: অর্থমন্ত্রী

   
প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, ৭ আগস্ট ২০২২

এক রাতের ব্যাবধানেই  দেশের বাজারে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করেছে সরকার। হঠাৎ করে এই  জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে তীবে ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ। তবে  আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমলে দেশের  ভোক্তারাও তার সুফল পেতে পারেন  বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, যে দাম বাড়ানো হয়েছে, তা কখনোই যুক্তি (লজিক) ছাড়া বাড়ানো হয়নি।

আজ রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে  জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) আয়োজনে রাজধানীর একটি হোটেলে বন্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের বন্ড লাইসেন্স অ্যাপ্লিকেশন মডিউলের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা কলেন। অর্থমন্ত্রী এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। আর বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ছিলেন বিশেষ অতিথি। এসময় মন্ত্রী বলেন, ‘সারা বিশ্বে এখন দাম কমে আসছে। সব জায়গায় কমা শুরু হয়েছে। আমরাও কম দামে কেনা শুরু করেছি। এগুলো যখন দেশে এসে পৌঁছাবে, তখন চাপ থাকবে না। আমি মনে করি দেশের ভোক্তারা কম দামে জ্বালানি তেল ব্যবহার করতে পারবেন।’

হঠাৎ জ্বালানি তেলের এত বেশি পরিমাণ মূল্যবৃদ্ধির যৌক্তিকতা কী—এটা ছিল অর্থমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন। জবাবে তিনি বলেন, ‘আশপাশের দেশগুলোর কী অবস্থা? এখানে যে দাম বাড়ানো হয়েছে, তা যুক্তি (লজিক) ছাড়া বাড়ানো হয়নি। বারবার বলছি, দাম বাড়ানোর সময় জনগণের প্রতি আমাদের লক্ষ্য থাকে। কতটুকু সহ্য করতে পারবে মানুষ, এটা বিবেচনায় থাকে।’ তবে যুক্তিগুলো কী, তা আর উল্লেখ করেননি অর্থমন্ত্রী। শুক্রবার রাতে প্রজ্ঞাপন জারির পর দুই দিনে জিনিসপত্রের দাম ও বাসভাড়া নতুন করে বেড়ে গেছে।

পরবর্তীতে  জ্বালানি তেলের দামের হ্রাস-বৃদ্ধির জন্য স্বয়ংক্রিয় মূল্য নির্ধারণ ব্যবস্থা চালু করা হবে কি না, জানতে চাইলে মুস্তফা কামাল বলেন, ‘এ মুহূর্তে সেটা বলতে পারব না। তবে আমরা এলপিজি গ্যাসের মূল্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্ধারণ করছি। জ্বালানি তেলের ক্ষেত্রেও আস্তে আস্তে তা চালু হবে।’

রেজানুল/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: