প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ জামাল বাদশা

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

সাংবাদিক অনুকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

   
প্রকাশিত: ১২:৪১ অপরাহ্ণ, ৮ আগস্ট ২০২২

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে সাংবাদিক অনুকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে কালীগঞ্জের তুষভান্ডারে কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সকালে কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ গোলাম রসুল ফোন করে চায়ের দাওয়াত দিয়ে থানায় ডেকে নিয়ে ‘লালমনিরহাট রিপোর্টার্স ইউনিটি’র যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস)’র কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব নূর আলমগীর অনুকে কথিত মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করেছে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। এনিয়ে সাংবাদিক সমাজে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মানববন্ধনে স্ত্রী শাহনাজ পারভীন বলেন, গত বৃহস্পতিবার (৪ আগষ্ট) দুপুরে কালীগঞ্জ থানার ওসির মোবাইল থেকে সাংবাদিক নূর আলমগীর অনুকে ফোন করে থানায় চায়ের দাওয়াত দেন। পরে অনু থানায় গেলে তাকে থানায় বসিয়ে রেখে ওই দিনই মামলা রেকর্ড করে তাকে আটক দেখিয়ে তড়িঘড়ি করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

তিনি আরো বলেন, তার ফুফু আমেনা শিরিন মুসতাযীরের করা একটি মিথ্যা অভিযোগে সাংবাদিক নূর আলমগীর অনুকে গ্রেফতার করে তড়িঘড়ি করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। উক্ত দেখানো মামলার একনও কোন তদন্ত বা নোটিশও প্রদান করা হয়নি বলে জানান।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন যাবত সাংবাদিক নূর আলমগীর অনুর পরিবারের সাথে তার আপন ফুফুদের পারিবারিক জমিজমা সংক্রান্ত একটি বিবাদ চলে আসছিলো। এনিয়ে আদালতে মামলা হলে সেই মামলার রায়ও যায় সাংবাদিক অনুদের পক্ষে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকেই বলেন, মূলত মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত ফেসবুকে পোস্ট করতেন সাংবাদিক নূর আলমগীর অনু। মাদক সেবনের ভিডিওসহ সে ছবিও পোস্ট করেছিলেন। সে কারণেই পুলিশ তাকে আটক করে জেলহাজতে পাঠান।

এ ব্যাপারে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সাংবাদিক নূর আলমগীর অনুর মুক্তি দাবী করে লালমনিরহাট রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মোঃ ইউনুস আলী বলেন, কালীগঞ্জ থানার ওসির মোবাইল থেকে সাংবাদিক নূর আলমগীর অনুকে ফোন করে থানায় চায়ের দাওয়াত দেন। পরে অনু থানায় গেলে তাকে থানায় বসিয়ে রেখে আলাপচারিতার মধ্যে মিথ্যা একটি মামলায় আটক দেখিয়ে তড়িঘড়ি করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। এটি ষড়যন্ত্রমূলক ও লজ্জাকর একটি ঘটনা। অবিলম্বে অনুর মুক্তি না হলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যাব।

এতে বক্তব্য রাখেন, লালমনিরহাট রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম বাবুল, সহসভাপতি রকিবুল হাসান রিপন, হাতীবান্ধা রিপোর্টার্স ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম, সাংবাদিক অনুর সহধর্মিণী শাহানাজ পারভীন রিনা প্রমূখ।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: