কামরুল হাসান অভি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে রাবিতে বিএনপিপন্থি শিক্ষকদের মানববন্ধন

   
প্রকাশিত: ১২:৫৫ অপরাহ্ণ, ১৭ আগস্ট ২০২২

বিদ্যুৎ খাতে বিপর্যয় এবং জ্বালানি ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বিএনপি-জামায়তপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম। বুধবার (১৭ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদতাজ উদ্দিন আহমেদ সিনেট ভবনের সামনে দলটির সাধারণ সম্পাদক ও বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক ড.মাসুদুল হাসান খান মুক্তার সঞ্চালনায় এবং দলের আহবায়ক অধ্যাপক ড. এফ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে দলটির শিক্ষকরা বলেন, দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতিতে নাভিশ্বাস আজ এদেশের সাধারণ মানুষ। এভাবে নিত্যপণ্যের দাম, গ্যাসের দাম, ভোজ্য তেলের দাম, ওষুধের দাম, পানির দাম, সবশেষ জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে সরকার শুধু সাধারণ মানুষকে বিপদে ফেলেছে। অথচ সরকারের মন্ত্রী, এমপি, আমলারা দুর্নীতি ও লুটপাটের মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. এফ নজরুল ইসলাম বলেন, একটা জাতির ধ্বংস অনিবার্য তখন যখন সে জাতির শিক্ষাকে ধ্বংস করা হয়। আপনারা জানেন সংসদে সংসদ সদস্যরা এ বিষয়ে বক্তব্য রেখেছেন। একটা বিশেষ গোষ্ঠীর পক্ষে প্রাইমারি থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত বইগুলোকে কিভাবে পরির্বতন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে আমি মনে করি জাতি ধ্বংসের দিকে পতিত হচ্ছে। তাছাড়াও দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য বিশেষ করে তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়ে দেশের মানুষকে এভাবে বিপদের মুখে ফেলে দিত না।

গতকালের প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. কুদরত-ই- জাহান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এতদিনে বুঝতে পেরেছেন কোন মানুষগুলো তার বাবাকে ঘিরে ছিল। এখনও তাকে কোন মানুষগুলো ঘিরে আছে! এটা তিনি যত তাড়াতাড়ি উপলব্ধি করবেন এ জাতির জন্য ততই মঙ্গল হবে।

অধ্যাপক জাহান প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনার উন্নয়নের চাকায় ফ্লাইওভার পরে মানুষ মারা যায়। আপনার উন্নয়নের চাপায় আমার তেল এখন ১৩৫ টাকা। উন্নয়নের চাপায় আমার ডিম এখন ১৪ টাকা পিস। চেয়ে দেখেন আপনার জনগণ কী খায়। আমরা চাই না আমাদের দেশ শ্রীলঙ্কার দিকে যাক। আমরা চাই আমাদের দেশ ইউরোপ, আমেরিকার মতো হোক। আপনি আমাদের ভোটাধিকার, গণতন্ত্র, স্বাধীনতা, বাক স্বাধীনতা ফিরিয়ে দেন। গুম কুন বন্ধ করুন। আর এগুলো না করলে এখনকার যে পরিস্থিতি তার চেয়ে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে।

জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরমের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. আমজাদ হোসেন বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার একটি বিনা ভোটের সরকার। এ সরকারের জনগণের প্রতি কোন দায় দায়িত্ব নাই। এ সরকার বাংলাদেশে বাকশালী পন্থায় রাম রাজত্ব কায়েম করেছে। তার প্রমান হাজারো। এ দেশ থেকে হাজার নয় লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা পাচার হয়েছে এবং এ পাচারকারীরা কারা এটা সবাই জানে।

তিনি বলেন, ৫ বছর আগে প্রধানমন্ত্রীর একজন মন্ত্রী সংসদে দাড়িয়ে বলেছিলেন ব্যাংকিং সেক্টরে পুকুর নয় সাগর চুরি হয়েছে। সেই সাগর চোররা কারা এটাও সবাই জানে। এই অবৈধ সরকার আবার কিভাবে অবৈধভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় তার গোপন ছক তৈরি করে ফেলেছে। তাই আমি মনে করি সরকার বিরোধী যে আন্দোলন হতে যাচ্ছে সেই আন্দোলনে আমাদের সকলকে অংশগ্রহণ করা উচিৎ।

এছাড়া মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন দলটির সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. এনামুল হক, বিশ্ববিদ্যালয় আইবিএ ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. হাসানাত আলি, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. ফজলুল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড.শাহেদ জামান, বাণিজ্য অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফরিদুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. আবুল হাসান মুকুল প্রমূখ।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: