প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

হারুন অর রশিদ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

হুনুমানি মূদ্রার নামে প্রতারনা দুই প্রতারক গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

কথিত আছে হুনুমানি মুদ্রাটি জীবিত অবস্থায় মূদ্রাটি দিয়ে নানান রকম অলৈৗকিক ক্ষমতা প্রদর্শন করা যায়। সেইরকম একটি নকল পয়সা বিক্রি করে প্রতারনা করায় দুই প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল রাতে আটোয়ারী থানা পুলিশের বারঘাটি তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যরা তাদের গ্রেফতার করেন। গ্রেফতার কৃতরা হলেন আটোয়ারী উপজেলার দারখোর গ্রামের করিমউদ্দিনের পুত্র সাইফুল ইসলাম (২২), এবং ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া থানার মধুপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে আবু সাইদ (৩৫)। শনিবার সকালে হুনুমানি মূদ্রা ক্রেতা অতুল সরকার বাদী হয়ে প্রতারনার অভিযোগ এনে দুজনের বিরুদ্ধে আটোয়ারি থানায় মামলা দায়ের করলে শনিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাদের দুইজনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। পঞ্চগড় চিফ জুডিশিয়াল আদালতের সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অলরাম কাজী তাদের জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেয়।

মামলার এজাহার ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায় দারখোর এলাকায় গুঞ্জন রয়েছে সাইফুল ইসলাম হুনুমানি মুদ্রার ব্যবসা করেন। বিভিন্ন সময়ে তার বাড়িতে বিভিন্ন জেলার লোকজন আসেন। সাইফুলের সাথে রুহিয়া থানার আবু সাইদের সাথে যোগশাজেশ রয়েছে। এরই মাঝে ঠাকুরগাঁও জেলার আবু সাইদের সাথে অতুল সরকারের পরিচিত হওয়ায় অতুলকে অলৈৗকিক হুনুমানি মূদ্রা ক্রয়ের প্রস্তাব দেয়। এরপর গত ২২ আগস্ট ঠাকুরগাঁও জেলার রুহিয়া এলাকার অতুল সরকার ও আবু সাইদ দুজনে রুহিয়া থেকে হুনুমানি মূদ্রা কিনতে আটোয়ারি উপজেলার দারখোর গ্রামে প্রতারক সাইফুলের বাড়িতে আসেন।

সাইফুলের বাড়িতে হুনুমানি মূদ্রার মাধ্যমে বাটিতে মূদ্রা রেখে দূধ শুষে নেওয়া, চিনির মাঝে মূদ্রা দিয়ে চিনিকে তরল করা এবং চাউল ভর্তি বাটিতে মূদ্রাটি রেখে চুম্বকের আকর্ষন শক্তি হয় এমনি ভাবে হুনুমানি মূদ্রার অলৈৗকিক ক্ষমতা দেখায় সাইফুল। ওই দিনই মূদ্রার অলৈৗকিক ক্ষমতা দেখানোর পর অতুল হুনুমানি কথিত নকল মূদ্রাটি অতুল সরকারের কাছে ৬০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন। এরপর অতুল ওই মূদ্রাটি বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে ওই মূদ্রা দিয়ে অলৈৗকিক ক্ষমতা পরীক্ষা করে দেখেন মূদ্রাটি কোন অলৈৗকিক ক্ষমতা দেখাচ্ছেনা। পরে অতুল সাইদ ও সাইফুলকে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে গতকাল শুক্রবার অতুল সাইফুল কে খুঁজতে তার বাড়িতে আসেন। প্রতারক সাইফুল তার সহযোগী সাইদ এবং অতুল সরকারের তুমূল বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এ সময় অতুল গোপনে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে সাইফুল ও সাইদকে গ্রেফতার করেন। সেই সাথে সাইফুলের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা উদ্ধার করেন পুলিশ।

আটোয়ারি থানার ওসি সোহেল রানা জানান সাইফুল ও তার সহযোগী আবু সাইদকে আটকের পর গ্রেফতার দেখানো হয়। সাইফুল একজন প্রতারক। সে দীর্ঘদিন থেকে হুনুমানি মূদ্রা দেখিয়ে বিভিন্ন জনের সাথে প্রতারনা করে আসছিল। অধিকতর তদন্তের মাধ্যমে এই চক্রের সাথে সাইফুল ছাড়া আর কেউ জড়িত আছে কি না ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: