প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

আব্দুল ওয়াদুদ

বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ায় হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যা

   
প্রকাশিত: ১১:১৪ অপরাহ্ণ, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় কৃষক রনজু হত্যা মামলার প্রধান আসামী সুলতান আলীকে (৩২) কুপিয়ে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার শৈলমারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুলতান আলী উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের শৈলমারি গ্রামের আলতাব আলীর ছেলে। থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সুলতান আলী বুধবার সন্ধ্যার দিকে বাড়ি থেকে ৪০০ মিটার দূরে জলাশয়ের ভেতর কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ শিকার করতে যায়। এসময় দূর্বৃত্তরা তার উপর আক্রমন করে কোপাতে থাকে। একপর্যায়ে সুলতান আলী মৃত্যু নিশ্চিত করে দূর্বৃত্তরা সেখান থেকে সটকে পড়ে।

স্থানীয় লোকজন সেখানে মাছ শিকার করতে গিয়ে বিষয়টি টের পেয়ে থানা পুলিশকে সংবাদ দেন। থানা পুলিশ রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করেছেন।

জানা গেছে, সুলতান আলী এলাকার চিহ্নিত মাদক কারবারি। তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনসহ বিভিন্ন অপরাধে একাধিক মামলা রয়েছে। এলাকায় মাদক দ্রব্য ব্যবসার প্রতিবাদী ছিল একই গ্রামের মোকছেদ আলীর ছেলে কৃষক রজনু মিয়া। সুলতান ও তার সহযোগীদের মাদক কারবারের বাধা হয়ে দাড়িয়েছিল কৃষক রনজু।
এ অবস্থায় ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারী সন্ধ্যায় রনজু মিয়া বাড়ির অদুরে নিজের জমিতে পাওয়ার টিলার দিয়ে জমি চাষ করছিলেন। রাত ৯টার দিকে সুলতান ও তার সহযোগীরা জমির ভেতর রনজুকে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। স্বজনরা রনজুকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাত ১টায় তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহত রনজুর স্ত্রী শিরিনা খাতুন বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলার প্রধান আসামী সুলতান আলী। ২০২০ সালের ২১ নভেম্বর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঢাকার কাফরুল থানা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ওই মামলায় সুলতান আলী জামিনে বেরিয়ে আসেন।

ধুনট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজ্জাকুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে নিহতের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করা হচ্ছে। তবে এ হত্যাকান্ডের কারণ এখন জানা যায়নি। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের সনাক্ত ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: