প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সোনারগাঁয়ে ইউপি সদস্যের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

   
প্রকাশিত: ১১:০২ অপরাহ্ণ, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

মাজহারুল ইসলাম, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) থেকেঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বারদি ইউনিয়নের শান্তিরবাজার এলাকায় ইউপি সদস্য ফারুক হোসেনের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়েছে। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে মসলেন্দপুর এলাকায় বারদি ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন, বারদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুল, সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, ইসমাইল সরকার রোমান, নাজমুল হক, আব্দুল আউয়াল, সংরক্ষিত সদস্য উম্মেহানী উর্মি, সালমা আক্তার শিখা ও সাবেক সদস্য জজ মিয়া প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি বারদি শান্তিরবাজার সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা জানান, উপজেলার বারদী ইউনিয়নের তিনটি ওয়ার্ডের প্রায় ৮টি গ্রামে সম্প্রতি চুরি ডাকাতি বেড়ে যায়। এ নিয়ে গত তিনদিন আগে গোয়ালপাড়া হাই স্কুল মাঠে চুরি ডাকাতি প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা সভা করা হয়। ওই সভায় বারদি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন চোর ডাকাতদের দায়ি করে বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তব্যের দুদিন পর রোববার সকালে শান্তিরবাজার এলাকায় মান্দারপাড়া গ্রামের হাবিবুর রহমান ওরফে হাবু ডাকাত, চেঙ্গাকান্দি গ্রামের ওমর ফারুক, আশিক, নুরা ডাকাত ও সুজনসহ ১০-১২ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ইউপি সদস্য ফারুক হোসেনের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। তার ডাক চিৎকারে চাচাতো ভাই কাউসার এগিয়ে এলে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মানববন্ধনে বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুল বলেন, আমরা জনপ্রতিনিধি হয়ে ডাকাতের সিন্ডিকেটের কাছে অসহায় হয়ে পড়েছি। জনপ্রতিনিধিদের উপর হামলা করতে সাহস পায় তাহলে সাধারণ মানুষ তাদের কাজে জিম্মি হয়ে পড়েছে। গত ৫ মাসে হাবু ডাকাতের নেতৃত্বে ৩ জনকে কুপিয়ে আহত করা হয়। এছাড়াও মহিষ চুরি, গরু চুরি, বৈদ্যুতিক ট্রান্সফর্মা চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে। প্রশাসনের কাছে দাবি সুষ্টু তদন্তের মাধ্যমে তাদের ইন্দনদাতাসহ সকলকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শান্তি দাবি করছি।

অভিযুক্ত হাবিবুর রহমান হাবু ডাকাতের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। অপর অভিযুক্ত ওমর ফারুক বলেন, বালুর ড্রেজার বসানোকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্যদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়েছে। ডাকাতি ও চুরির ঘটনা প্রচার করে আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যের উপর হামলার ঘটনায় অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। এছাড়াও চুরি ডাকাতি প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: