প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ে করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে

   
প্রকাশিত: ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ে করে নারী কেলেঙ্কারি, প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়া ওরফে বাদশা শেখের (৫০) বিরুদ্ধে। এসব অভিযোগ তুলে সম্প্রতি তার নামে নির্যাতিত এক নারী আদালতে মামলা করেছেন। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ভুক্তভোগী ওই নারী বাদশার সাথে ঘনিষ্ঠতার ছবি ও মামলার অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বাদশা বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার কলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি। আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে বাগেরহাট পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

ভুক্তভোগী নারীর আইনজীবী শেখ বাহাদুর ইসলাম জানান, বাগেরহাটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (চিতলমারী) ভুক্তভোগী ওই নারী বুধবার মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মো. খোকন হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বাগেরহাট কার্যালয়কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

ভুক্তভোগী ওই নারী (৩৫) জানান, তার স্বামী সৌদি আরবে থাকার সুযোগে ২০১২ সালের দিকে কলাতলা ইউনিয়নের চরচিংগুড়ী গ্রামের মৃত ছালাম শেখের ছেলে বাদশা শেখের সাথে সুসম্পর্ক হয়। তাকে বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে প্রবাসী স্বামীকে তালাক দেওয়ান। পরে ২০১৫ সালের ১০ অক্টোবর খুলনার অজ্ঞাত এক কাজি অফিসে তিন লাখ টাকা কাবিনে বিয়ে করেন। একই সাথে খুলনা শহরের টুটপাড়া এলাকার মাওলানা আব্দুল জব্বারের মাধ্যমে কালেমা পড়িয়ে বিয়ে সম্পন্ন করেন। স্বামী-স্ত্রী হওয়ার সুবাদে বাদশা বিভিন্ন সময় ব্যবসা করার জন্য তার কাছ থেকে প্রায় সাড়ে ১১ লাখ টাকা নেন। এরই মধ্যে বাদশা শেখ ওরফে বাদশা মিয়া চিতলমারী কলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন এবং তার সাথে যোগাযোগ কমিয়ে দেন। এক পর্যায়ে বিয়ের কথা অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে কলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়া বলেন, ওই নারী সম্পর্কে আমার নাতনি হয়। কোনো এক বিয়ের অনুষ্ঠানে এই ছবি তোলা ছিল মনে হয়। তার কাছ থেকে কোনো টাকা নিইনি, প্রতারণাও করিনি। আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য হয়তো এই মামলা করিয়েছে।

ইমদাদ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: