প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সাহিদুজ্জামান সাহিদ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

সাটুরিয়ায় ভ্যানচালকের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, লুটপাট

   
প্রকাশিত: ৪:০২ অপরাহ্ণ, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়নের কৈট্টা কাজীপাড়া এলাকায় আব্দুল আলীম নামে এক ভ্যান চালকের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, অগ্নিকান্ড ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে একই এলাকার মহর আলী ৩০/৩৫ জনের একদল লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে এই ভাঙচুর ও লুটপাটের তান্ডব চালায়।

পরে অগ্নিসংযোগ করে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায় ওই লাঠিয়াল বাহিনী। এসময় স্থানীয় থানা পুলিশকে বিষয়টি মোবাইল ফোনে অবগত করেও কোন প্রতিকার পায়নি ভুক্তভোগী ভ্যান চালকের পরিবার।

শুক্রবার দুপুরে সরেজমিনে (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে কৈট্টা কাজীপাড়া এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ভ্যান চালক আলীমের বসতভিটা ভাঙচুর অবস্থায় রাস্তায় পড়ে আছে। ঘরের আসবাবপত্র রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। ঘরের খুঁটি, টিন সব ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। এছাড়া বৈদ্যুতিক মিটারের তার খুলে ফেলা হয়েছে।

এসব বিষয়ে মো.আব্দুল আলীম বলেন, প্রধান হামলাকারী মোহর আলী আমার বাবা। প্রায় দুই যুগ আগে আমার দুই বোন ও মাকে রেখে অন্য জায়গায় বিয়ে করেন তিনি। তারপর থেকে সে কখনো আমাদের খোঁজ খবর নেয়নি। কিছুদিন আগে আমার দাদি আমাকে আড়াই শতাংশ জায়গা থাকার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করে দিয়েছে।

এরপর থেকে বাবা মহর আলী দীর্ঘদিন ধরে জায়গা ছাড়ার জন্য হুমকি দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে উভয়পক্ষের আইনজীবী এবং গ্রামের মুরুব্বি নিয়ে সালিশ হলে আমার কাগজপত্র দেখে আমাকে ওই জমিতে বসবাস করতে বলেন। সালিশে সুরাহার পর কিছুদিন শান্তিতে থাকলেও গতকাল সকালের দিকে মোহর আলী তার লোকজন নিয়ে অতর্কিত হামলা করে আমার ঘর-বাড়ি পুরোপুরি ভেঙ্গে রাস্তায় ফেলে দেয়।

তার সাথে লোকজন ঘরে থাকা তিন লাখ টাকা নিয়ে যায়। তাদের হাতে দেশীয় অস্ত্র থাকায় এলাকার লোকজন এগিয়ে আসেনি। দুই বছরের শিশু সন্তান নিয়ে রাস্তার পাশে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করতে হচ্ছে। এ ঘটনায় সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

ভুক্তভোগী আলিমের দাদী সাহেরা খাতুন বলেন, মহর আলী আমার ছেলে হওয়ার পরও আমাকে লাথি মেরে ঘর থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দিতো। নাতিরে অল্প একটু জায়গা লিখে দিছি। নাতিই আমারে দেখা শোনা করে। নাতির ঘরবাড়ি সব ভেঙ্গে ফেলছে। মোহর আলী আমার ছেলে হলেও দেখভাল করেনা। আমারে চকে গিয়া থাকতে বলে। আমি এই হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিকান্ড এবং লুটপাটের বিচার চাই বলে জানান তিনি।

আব্দুল আলীমের মা চায়না বেগম বলেন, মোহর আলী আমার স্বামী হলেও কখনও ভরন পোষন করেননি। আমি মাটি কাইটা পুলাপানগুলা মানুষ করছি। আমার শাশুড়ি আমার পুলারে জায়গা লেখে দিছে। সেই জায়গাতেও তিনি থাকতে দিবনা। ঘরবাড়ি সব গুড়াইয়া দিছে। এখন আমরা কই গিয়া থাকুম।

এ সব অভিযোগের বিষয়ে মোহর আলীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে সাটুরিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস বলেন, ঘর-বাড়ি ভাঙচুরের সংবাদ পেয়ে থানা থেকে অফিসার পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: