প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

‘রাজধানীর সব এলাকায় বিদ্যুৎ আসতে দেরি হতে পারে’

   
প্রকাশিত: ১০:১৭ অপরাহ্ণ, ৪ অক্টোবর ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় গ্রিডে সমস্যার কারণে রাজধানীসহ সারাদেশের এক তৃতীয়াংশে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। তবে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিদ্যুৎ সরবারহ চালু করেছে কর্তৃপক্ষ। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন, রাজধানীতে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে আরও কিছু সময় লাগতে পারে। মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) রাত ৯টার দিকে ভেরিফায়েড ফেসবুকে পেজে একটি পোস্টে বিদ্যুৎ সর্বশেষ পরিস্থিতি জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি লিখেন, বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল হয়েছে- মিরপুর, মগবাজার, মাদারটেক, রামপুরা, গুলশান, উলন, বসুন্ধরা, ধানমন্ডি, আফতাবনগর, বনশ্রী, ধানমন্ডি (আংশিক), আদাবর, শেরে বাংলা নগর, তেজগাঁও, মিন্টুরোড, মতিঝিল, শ্যামপুর, পাগলা, পোস্তগোলাসহ বেশকিছু এলাকায়। পাওয়ার গ্রিডের ইঞ্জিনিয়ার ও টেকনিশিয়ানরা অক্লান্ত শ্রম দিচ্ছেন, দ্রুতই বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হবে। ধৈর্য ধারণের জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

এর আগে সন্ধ্যা ৬টা ৫২ মিনিটে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে পেজে এমন তথ্য দিয়ে একটি পোস্ট করেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি পোস্টে লিখেন, ঢাকা ও আশপাশের অঞ্চলে দ্রুত বিদ্যুৎ রিস্টোর করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, জামালপুর, মানিকগঞ্জে বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল হয়েছে। ঢাকা, গাজীপুর, চট্টগ্রাম, সিলেট, নারায়ণগঞ্জ ও সিদ্ধিরগঞ্জের আংশিক এলাকায় সরবরাহ চালু করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকায় লোড বেশি। এ করণে সব লাইন সচল করতে কিছুটা দেরি হতে পারে। এমন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির কারণে মানুষের অসুবিধার জন্য আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করেন প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। এর আগে তিনি সন্ধ্যার মধ্যেই সারাদেশে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নসরুল হামিদ জানান, জাতীয় গ্রিডে বিপর্যয়ের ফলে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোতে সরবরাহ স্বাভাবিক হওয়ার প্রত্যাশা করছি। বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে আরও দুই থেকে তিন ঘণ্টা সময় লাগবে। এদিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক পর্যায়ে নিয়ে আসার জন্য কাজ করছে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো।

পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি) আশা প্রকাশ করেছে, রাতের মধ্যেই বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে। শুরুতে জরুরি স্থাপনায় বিদ্যুৎ সরবরাহে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে টঙ্গি, ঘোড়াশালসহ কয়েকটি জায়গার পাওয়ার প্ল্যান্ট চালু হয়েছে।

জানা গেছে, আশুগঞ্জ গ্রিডে ত্রুটির ফলে জাতীয় গ্রিডে বিপর্যয় (ট্রিপ) হয়। এতে রাজধানীসহ চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ ও সিলেটের অধিকাংশ জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এর আগে, মঙ্গলবার দুপুর ২টা ৫ মিনিটের দিকে এ বিপর্যয় ঘটে।

তুহিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: