প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

শাহাদুল ইসলাম সাজু

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হলো দুর্গোৎসব

   
প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, ৫ অক্টোবর ২০২২

ভক্তবৃন্দের কন্ঠে ’মা তুমি আবার এসো’ এ আকুতি জানিয়ে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার। পাঁচদিন ব্যাপী দুর্গোৎসবের শেষ দিনে বুধবার মন্ডপে মন্ডপে দশমীর বিহিত পূজার মধ্য দিয়ে ঘটে সমাপ্তি। এরপর শুরু হয় দেবীর বিসর্জন ও শান্তিজল গ্রহনের পালা।

গত শনিবার বোধনে অরুণ আলোর অঞ্জলি নিয়ে আনন্দময়ী মা উমাদেবীর আগমন ঘটে মর্ত্য। হিন্দু বিশ্বাসে টানা পাঁচ দিন মৃন্ময়ীরুপে মন্ডপে মন্ডপে থেকে ফিরে গেছেন কৈলাসে স্বামী শিবের সান্নিধ্যে। এবার গজে আসা দেবী ফিরেছেন নৌকায়। মন্ডপে মন্ডপে ভক্তদের ঢল, ঢাক আর শঙ্খধ্বনি, সিঁদুর খেলায় মুখরিত হয়ে ওঠে মন্ডপ প্রাঙ্গন। একদিকে উৎসবের আমেজ অন্যদিকে বিদায়ের সুর, শুরু হয় আনন্দে বিষাদে বিদায় উৎসব। বুধবার জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে বিজয়ার শোভাযাত্রা শেষে ছোট যমুনা নদীর চকশ্যাম ঘাটে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়। জেলার পাঁচ উপজেলায় এবার ২শ ৯২ টি মন্ডপে দুর্গা পূজার আয়োজন করা হয়। সুষ্ঠুভাবে পূজা উদযাপনে সরকারের পক্ষ থেকে ১শ ৪৬ মে:টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস অসুর শক্তি বিনাশকারী দেবী দুর্গার বিদায় নেয়ার সঙ্গে সঙ্গে পৃথিবী থেকে সকল অপশক্তি বিনাস হয়। বিজয়া শোভাযাত্রার পূর্বে নারীরা দেবীর ললাটের সিদুঁর আপন ললাটে এঁকে নেন। পুরুষরা অশুভ শক্তির বিনাশ কামনা করেন। সবার অন্তরে কামনা আগামী শরতে আবার বাঙালী হিন্দুর ঘরে ঘরে ফিরে আসবেন মা উমা। আনসার ও পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবের টীম তদারকি করে প্রতিটি পূজা মন্ডপ গুলোতে। বর্ণাঢ্য বিজয়া শোভাযাত্রায় নারী, পুরুষ, শিশু কিশোর সকলেই অংশ গ্রহন করেন বাদ্যযন্ত্র সহ। চকশ্যাম ঘাটে পুরোহিতের শেষ মন্ত্রপাঠের মধ্য দিয়ে ধর্মীয় রীতি মেনে অপরাজিতা পূজা শেষে বিসর্জন দেয়া হয় দেবী দুর্গাকে। শেষে আনা হয় শান্তি জল।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: