প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

আবদুল কাদির

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

মাদক সেবন নিয়ে দ্বন্দ্বে কিশোরের ছুরিকাঘাতে বন্ধু খুন

   
প্রকাশিত: ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ, ১২ অক্টোবর ২০২২

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় সারোয়ার রহমান শান্ত (১৭) খুনের ঘটনায় দুই কিশোরকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। মাদক সেবন ও খেলাধুলার দ্বন্দ্বে পরিকল্পিতভাবে শান্তকে খুন করে তার বন্ধুরা। মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮ টায় জেলা গোয়েন্দা শাখার পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানান জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম।

এর আগে সোমবার (১০ অক্টোবর) জেলার মুক্তাগাছা উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, জেলার মুক্তাগাছা উপজেলার কান্দিগাঁও এলাকার মোঃ বাবর আলীর ছেলে মোঃ তারিকুল ইসলাম লিমন (১৭), একই এলাকার সাইদুল ইসলাম রাজার ছেলে মোঃ রবিউল হাসান শুভ (১৭)।

ওসি শফিকুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, গত বুধবার (৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮ টায় উপজেলার পাইকা শিমুল নতুন বাজার এলাকায় প্রতিমা বিসর্জনের সময় মুক্তাগাছা পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিল মতিউর রহমানের ছেলে সারোয়ার রহমান শান্তকে অজ্ঞাতরা ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে শান্তকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে ওইদিন রাত সাড়ে ১০ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শান্ত মারা যায়।

ঘটনার দুইদিন পর ৭ অক্টোবর নিহতের বাবা মতিউর রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মুক্তাগাছা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে সোমবার (১০ অক্টোবর) অভিযান চালিয়ে মুক্তাগাছা থেকে হত্যার সাথে জড়িত দুই কিশোরকে আটক করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে ওসি সফিকুল ইসলাম বলেন, শান্তর সাথে হত‍্যাকারীরা এক সাথেই খেলাধুলা করত। সম্প্রতি শান্তর সাথে আসামিদের মাদক সেবন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। সেই জেরে লিমন, শুভ ও পালাতক আরও দুই আসামি শান্তকে হত‍্যা করতে ঘটনার ৮-১০ দিন আগে পরিকল্পনা করে। পুর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী গত ৫ অক্টোবর নতুন বাজার বিসর্জন ঘাটে রাত সাড়ে আটার দিকে শান্তকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) বিকালে দুই কিশোরকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তাজুল ইসলাম সোহাগের আদালতে হাজির করা হলে ১৬৪ ধারায় হত্যায় ঘটনায় স্বীকারোক্তি-মূলক জবানবন্দি দেয়। পরে আদালত তাদের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। হত্যাকাণ্ডে জড়িত পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান ওসি শফিকুল ইসলাম।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: