রাজধানীতে পার্লারের হোম সার্ভিস দিতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার নারী, আসামি গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ১২:১৭ অপরাহ্ণ, ১৩ অক্টোবর ২০২২

প্রতিকি ছবি

পার্লারের হোম সার্ভিস দিতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী পার্লার কর্মী। মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর ধানমন্ডিতে এমনই এক ফোনকল পেয়ে সেখানে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন তিনি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর স্বামী বাদী হয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করেন শেরেবাংলা নগর থানায়। মামলার পর গতকাল বুধবার রাত থেকে অভিযান চালাচ্ছে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ। এরই মধ্যে অভিযুক্ত কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) বেলা সোয়া ১১টার দিকে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) এইচ এম আজিমুল হক গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে বুধবার রাত থেকে শুক্রাবাদসহ বেশকিছু এলাকায় অভিযান চলমান রয়েছে। অভিযানে কয়েকজন গ্রেফতার হয়েছে। যাচাই-বাছাই চলছে। এখনো অভিযান চলমান।

এ বিষয়ে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ধর্ষণের শিকার নারীর বড় ভাই গণমাধ্যমকে জানান, ফেসবুকে অর্ডার পেলে বাসায় গিয়ে মেয়েদের বিউটি পার্লারের কাজ করে আমার বোন। মঙ্গলবার রাতে এক নারীর অর্ডার পেয়ে সাভার থেকে ধানমন্ডির ২৮ নম্বর রোডের বয়েজ স্কুলের কাছ যায় সে। সেখানে ওই নারী একজন পুরুষকে দিয়ে আমার বোনকে রিসিভ করান। পরে একটি বাসায় নিয়ে টাকার বিনিময়ে ৩ জন পুরুষের কাছে আমার বোনকে দিয়ে দেয় ওই নারী। তিনি বলেন, ওই ব্যক্তিরা আমার বোনকে জোর করে ধর্ষণ করে। পরে মোবাইল রেখে তাকে বাসা থেকে বের করে দেয়। আমার বোন সেখান থেকে রিকশায় গাবতলী পর্যন্ত আসেন। সেখানে তার স্বামীকে ফোন দিলে তিনি গাবতলী থেকে বোনকে নিয়ে সাভারে যায়।

বিউটিশিয়ানের স্বামী গণমাধ্যমকে জানান, আমার স্ত্রী পার্লারের কাজ শিখেছেন। বাসায় গিয়ে রূপচর্চা সেবা দেন। অনলাইনে এমন একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন। সেখানে অর্ডার পেয়ে ধানমন্ডি ২৮ নম্বরে গিয়েছিলেন আমার স্ত্রী।

নাঈম/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: