প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

নির্বাচনে জয়ের লক্ষ্যে ব্যক্তিগতভাবে অনেক দিন ধরেই কাজ করে যাচ্ছি

   
প্রকাশিত: ৭:২৩ অপরাহ্ণ, ১৪ অক্টোবর ২০২২

ছবি - সংগৃহীত

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হবিগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগের তিন হেভিওয়েট প্রার্থী। সবাই ভোটের মাঠে সরব। দলের বিভিন্ন স্তরে যোগাযোগ রাখছেন। এলাকায় জনসাধারণের সহযোগিতাও চাচ্ছেন। এখানকার বর্তমান এমপি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী এলাকা থেকে কিছুটা বিচ্ছিন্ন। এ সুযোগ কাজে লাগাতে চান জনপ্রিয় নেতা ব্যারিস্টার সাইদুল হক সুমনসহ অন্য প্রার্থীরা। আওয়ামী লীগের দুর্গে মনোনয়ন পেলে জয়ী হবেন বলে মনে করছেন তারা।

স্থানীয়রা বলছে, চুনারুঘাট ও মাধবপুর উপজেলা নিয়ে এ আসনে আবারও মনোনয়ন চাইবেন বর্তমান এমপি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। গত দুই মেয়াদে তিনি এমপি। ব্যক্তিগতভাবে সজ্জন হিসেবে পরিচিত এই নেতার এলাকায় কাজ কম। এলাকায় আসেনও কম। গত মেয়াদে ঢাকায় আইন পেশা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এলাকায় খুব একটা সময় দিতেন না বলে ভোটারদের অভিযোগ।

এ আসনের জন্য এখন পর্যন্ত ৩ জন প্রার্থীর নাম জানা গেছে। গত দুই মেয়াদে নির্বাচিত প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, চুনারুঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আকবর হোসেন জিতুও এবং ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন। তাদের সবার প্রত্যাশা ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তাদের মনোনিত করলে তারা ব্যাপক ভোটে জয়লাভ করবেন।

মনোনয়নের বিষয়ে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন বলেন, ‘নির্বাচনী প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আমি গত দুবার মনোনয়ন চেয়েছি। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে অনেক দিন ধরেই কাজ করে যাচ্ছি। আমি মূলত তরুণদের প্রতিনিধিত্ব করি। আমাকে দিলে লোকজন এটা মনে করে যে, সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়ে পাস করবো।’

যদিও এলাকাবাসী বলেছে, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন এলাকার জন্য অনেক ভালো কাজ করেছে। সুমন যদি দুই দলের বাইরে গিয়ে নির্বাচন করে তাহলে সে জয়লাভ করবে। মাহবুব আলীর ব্যস্ততা বা নীরবতায় তিনি এলাকায় সে অবস্থানটা করে নিয়েছেন।

আশরাফুল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: