প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

শাহাদুল ইসলাম সাজু

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটে নবান্ন উৎসব ‘আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম’

   
প্রকাশিত: ১১:১৯ অপরাহ্ণ, ১৬ নভেম্বর ২০২২

আগে কী সুন্দর দিন কাটাইতাম গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু-মুসলমান মিলিয়া বাউলা গান ঘাটুগান গাইতাম’ জনপ্রিয় এই গানের তালে তালে নৃত্য পরিবেশের মধ্যে দিয়ে জয়পুরহাটে পালন করা হলো নবান্ন উৎসব। বুধবার বিকেলে থেকে শুরু করে রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত শহীদ ডা. আবুল কাশেম ময়দানে এই নবান্ন উৎসব আয়োজন করা হয়। জয়পুরহাট নবনাট্য সংঘ, এ কে এম আব্দুল আজিজ সংগীত ভুবন ও একুশে আবৃত্তি পরিষদ যৌথ ভাবে জয়পুরহাটের মানুষের কাছে নবান্নের ঐতিহ্য তুলে ধরতে সোনার অধিক দামী, দেশের এ জান, মালিকের এ দানে বাঁচেরে পরান, কাটিয়া আনোরে ধান, আগোনে হবে নবান এই স্লোগানে নবান্নোৎসবের আসর বসে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে একুশে আবৃত্তি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লালন হোসেনের সঞ্চালনায় দর্শকদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন জয়পুরহাট নবনাট্য সংঘের সভাপতি রাজা চৌধুরী।

আয়োজকেরা বলেন, ঋতু বৈচিত্র্যের হেমন্ত দিনে, আবহমান বাংলার চিরায়ত সংস্কৃতির অংশ হিসেবেই এমন আয়োজন। এমন লোকজ অনুষ্ঠানগুলো সকল ধর্ম ও বর্ণের বাঙালিকে একত্রে বসবাসের অনুপ্রেরণা দিতে পারে।

তাঁদের মনে অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে পারে। তাই দেশের সকল শহর, নগর, গ্রাম-গঞ্জ, পাড়া-মহল্লায় এ ধরনের অনুষ্ঠান বেশি বেশি করা এখন সময়ের দাবি। তাতেই দেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি শিথিল হবে। সেই বোধ থেকেই শান্তি প্রিয় এ দেশের মানুষের মাঝে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্প থেকে বেরিয়ে এসে তাঁদেরকে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতেই এই আয়োজন।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক ওই জোটের সভাপতি রাজা চৌধুরী বলেন, নবান্ন উৎসব মূলত কৃষিপ্রধান বাংলাদেশের কৃষকের উৎসব। এ সময়ে কৃষকের ঘরে নতুন ধান উঠে। আর নতুন ধানের গন্ধে আমোদিত হয়ে উঠে বাংলার গ্রামাঞ্চল। নগরায়নের ফলে আমরা যেন এ উৎসবগুলোকে হারিয়ে না ফেলি তাই নানাভাবে উপস্থাপন করছি নগরবাসীর সামনে।

এ কে এম আব্দুল আজিজ সংগীত ভুবন’ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তামান্না ইয়াসমিন বলেন, নবান্নের অনুষ্ঠান কি সেগুলোই আমরা মানুষকে জানাতে চাই, ছেলেমেয়েদেরকে জানাতে চাই। অনেক দিন বন্ধ ছিল এই অনুষ্ঠানগুলো। আমরা আবার দেশবাসীকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছি। দর্শক শিপন দেবনাথ বলেন, অনুষ্ঠানে এসে, সবকিছু দেখে, উপভোগ করতে পেরে খুব ভালো লাগল। পুরোনো দিনের কথা মনে নাড়া দিল। এমন আয়োজন বেশি বেশি করা প্রয়োজন।

নবান্ন উৎসবে উপস্থিত ছিলেন নবনাট্য সংঘ, এ কে এম আব্দুল আজিজ সংগীত ভুবন ও একুশে আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি রাজা চৌধুরী, নবনাট্য সংঘের কেন্দ্রীয় পরিষদ সহ সভাপতি দিলীপ সেন, এ কে এম. আব্দুল আজিজ সংগীত ভুবনের সাধারণ সম্পাদক তামান্না ইয়াসমিন, জেলা একুশে আবৃত্তি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লালন হোসেন, লেখক ও জয়পুরহাটের দেশি গাছ ও জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণ আন্দোলনের আহ্বায়ক রতন মন্ডল প্রমূখ।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: