টুটুলের বিচার দাবিতে ইবির প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয়ে ভাংচুর, ভিসিকে স্মারকলিপি

   
প্রকাশিত: ২:১৪ অপরাহ্ণ, ১৯ নভেম্বর ২০২২

আবু হুরাইরা, ইবি থেকেঃ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (সাবেক প্রধান প্রকৌশলী) আলিমুজ্জামান টুটুলের সঙ্গে অজ্ঞাত এক ছাত্রীর গত ১৬ অক্টোবর আপত্তিকর কথোপকথনের অডিও ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় টুটুলের বিচার দাবিতে প্রধান প্রকৌশলী মুন্সী সহিদ উদ্দীন মোঃ তারেকের কার্যালয়ে ভাংচুর করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে আন্দোলনকারীরা টুটুলের স্থায়ী বহিষ্কার চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালামের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। শনিবার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় এ প্রকৌশল অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, টুটুলের বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা প্রধান প্রকৌশলীর অফিসে যায়। আলোচনার এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে প্রধান প্রকৌশলীর অফিস ভাংচুর করে। প্রকৌশল অফিসের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এতে প্রধান প্রকৌশলীসহ কয়েকজন ভিতরে আটকে পরে। আন্দোলনে ইশতিয়াক, বিন্তু, সাইমন, শাহীন পাশা, উম্মে হাবিবা হ্যাপিসহ ৪০/৫০ জন উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপিতে তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী ও বর্তমান তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুলের নামে ৬ মিনিট ২১ সেকেডের আপত্তিকর অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরে যা বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী, যারা দেশ ও দেশের বাইরে অবস্থান করছেন তাদেরকে বিব্রত করছে। একইসাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম বিনষ্ট করেছে।

উল্লেখ্য, এর আগেও ২০১৩ সালে কুষ্টিয়ায় এক শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীদের গোপন ভিডিও ধারণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা হলে গ্রেপ্তার এবং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার হন। এতে অভিযুক্ত টুটুলের স্থায়ী বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তারা।

এ বিষয়ে প্রধান প্রকৌশলী মুন্সী সহিদ উদ্দীন মোঃ তারেক বলেন, তারা আমার অফিসের দরজায় লাথি দিয়েছে এবং সুকেশের কাঁচ ভাংচুর করেছে। আমি চাই প্রশাসন আমাদের নিরাপত্তার বিষয়টা দেখবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে।

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বিষয়টি শুনে প্রধান প্রকৌশলীর সাথে কথা বলেছি। তারা আলোচনা করে প্রশাসনের কাছে লিখিত দিলে প্রশাসন ব্যবস্থা নিবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, তিনি যে কাজটি করেছে তা গ্রহনযোগ্য না। একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: