প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দান প্রস্তুতে কাজ করছে মুসল্লিরা

   
প্রকাশিত: ৬:২৩ অপরাহ্ণ, ২৭ নভেম্বর ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

টঙ্গী তুরাগ নদীর তীরে আগামী ২০২৩ সালের দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। ইজতেমা মাঠে স্বেচ্ছায় মুসল্লিরা খুঁটি, প্যান্ডল টাঙ্গানোসহ বিভিন্ন কাজ করছেন। দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব ১৩ থেকে ১৫ জানুয়ারি মাঝখানে চারদিন বিরতি দিয়ে ২০ থেকে ২২ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। ১৫ জানুয়ারি রবিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে প্রথম পর্ব শেষ হবে। মাঝে চার দিন বিরতি দিয়ে ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমার সমাপ্তি ঘটবে।

এর আগে আগামী ২, ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর স্বল্প পরিসরে ময়দানের উত্তর-পূর্ব কোনে স্থাপিত টিনশেডে দেশ-বিদেশের তিন চিল্লার সাথীদের সমন্বয়ে প্রথম পর্বের আয়োজকদের চারদিনের জোড় ইজতেমা হওয়ার কথা রয়েছে। ইতোমধ্যে বিশ্ব ইজতেমা মাঠে স্বেচ্ছায় মুসল্লিরা খুঁটি, প্যান্ডল টাঙ্গানোসহ বিভিন্ন কাজ করছেন। ময়দানে কাজ করতে আসা স্বেচ্ছাসেবীরা জানান, তুরাগ নদীর তীরের ১৬০ একর সুবিশাল ময়দান প্রস্তুত করতে শত-শত স্বেচ্ছাসেবী কাজ করে যাচ্ছেন। ২০২০ সালে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর করোনা মহামারীর কারণে গত দুইবছর ২০২১ ও ২০২২ সালে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়নি। আসন্ন বিশ্ব ইজতেমাকে সামনে রেখে ময়দানের প্রস্ততি কাজ স্বেচ্ছাশ্রমে এগিয়ে চলছে।

টঙ্গী, গাজীপুর, তুরাগ, কামারপাড়া, আশুলিয়া, মিরপুর, উত্তরার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্র ও মসজিদের মুসল্লিরা পালাক্রমে কাজ করছেন। কেউ কেউ আগাছা-ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন, মাটি কাটা, পুরোনো ড্রেন সংস্কার, বাঁশের খুঁটি স্থাপন, পাটের চট দিয়ে সামিয়ানা তৈরি, ময়দানের চারপাশের ওজু-গোসলের চৌবাচ্চাগুলো সংস্কারের কাজে ব্যস্ত রয়েছেন।

বিশ্ব ইজতেমা ময়দান ঘুরে দেখা যায়, একদল মুসল্লি স্বেচ্ছাশ্রমে ময়দানে বাঁশের খুঁটি স্থাপন, ময়লা আর্বজনা পরিষ্কারসহ বিভিন্ন কাজ করছেন। কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলা থেকে মো. সেলিম মিয়া স্বেচ্ছায় কাজ করতে এসেছেন। তিনি বলেন, প্রতি বছরের মতো এবারও বিশ্ব ইজতেমা মাঠে স্বেচ্ছায় কাজ করতে এসেছেন। আল্লাহর রাস্তায় কাজ করতে এসেছি। আগামী জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্ব ইজতেমা যাতে সফল ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হতে পারে সেজন্য কাজ করছি। করোনা মহামারীর কারণে গত দুইবছর ইজতেমা হয়নি। এবার বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনের অনুমতি দেয়ায় খুবই খুশি।

প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরব্বি ডা. কাজী সাহাবুদ্দিন বলেন, আগামী ১৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য আলমি শূরার ৫৬তম বিশ্ব ইজতেমাকে সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য একযোগে কাজ করে যাচ্ছি। মূল ইজতেমার আগে আগামী ২, ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর দেশ-বিদেশের তিন চিল্লাধারী সাথীদের নিয়ে টিনশেডে স্বল্প পরিসরে চার দিনের জোড় অনুষ্ঠিত হবে। দীর্ঘ দুইবছর পর টঙ্গীর ময়দানে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ খবর শুনে দেশ-বিদেশের মুসল্লিরা অনেক আনন্দিত। তারা মহান আল্লাহপাকের দরবারে শুকরিয়া আদায় করেছেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি মো. শাহ আলম বলেন, আগামী ১৩ জানুয়ারি প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমাকে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে ইজতেমা মাঠসহ পুরো এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।সূত্র-বাসস।

নাঈম/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: