প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

মেহেদি হাসান হাসিব

নিজস্ব প্রতিবেদক

রসিকের প্রার্থীদের ইভিএম কাস্টমাইজেশন দেখাবে ইসি

   
প্রকাশিত: ১২:০১ পূর্বাহ্ণ, ১৫ ডিসেম্বর ২০২২

আগামী ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনের সকল প্রার্থীদের ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কাস্টমাইজেশন পদ্ধতি দেখাবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এক্ষেত্রে প্রার্থীরা নিজে অথবা তাদের প্রতিনিধিরা নির্বাচন ভবনে এসে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান জানিয়েছেন, রিটার্নিং কর্মকর্তাকে মো. আবদুল বাতনকে ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে। তিনি বিষয়টি প্রার্থীদের অবহিত করবেন।

চিঠিতে বলা হয়েছে- রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ব্যবহৃতব্য ইভিএমসমূহ নির্বাচন ভবনের বেইজমেন্ট-১ এ প্রশিক্ষিত কাস্টমাইজেশন টিম দ্বারা কাস্টমাইজেশন করা হবে। কাস্টমাইজেশন কার্যক্রম ২২ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত চলবে। কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুসারে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অথবা প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কর্তৃক মনোনীত কারিগরী জ্ঞান সম্পন্ন প্রার্থীর ১/২ জন প্রতিনিধি ১৮ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখে কাস্টমাইজেশন সেন্টারে উপস্থিতির বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অথবা প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কর্তৃক মনোনীত প্রতিনিধিগণ ইভিএম কাস্টমাইজেশন সেন্টারে উপস্থিত হয়ে কাস্টমাইজেশনের বিভিন্ন দিক অবলোকন করবেন।

রসিক নির্বাচনে মোট প্রার্থী সংখ্যা রয়েছে ২৭০ জন। এক্ষেত্রে মেয়র পদে নয় জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৯২ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ভোটের মাঠে।

মেয়র পদে নয় প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হলেন- জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) শফিয়ার রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমিরুজ্জামান পিয়াল, খেলাফত মজলিশের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রাজু, জাকের পার্টির খোরশেদ আলম খোকন, বাংলাদেশ কংগ্রেস-এর আবু রায়হান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মেহেদী হাসান বনি ও লতিফুর রহমান মিলন।

নির্বাচনে দুই লাখ ১২ হাজার ৩০২ জন পুরুষ এবং দুই লাখ ১৪ হাজার ১৬৭ জন নারী ভোটার ২২৯টি কেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাবেন।

ইতিমধ্যে নির্বাচনি প্রচার শুরু হয়ে গেছে, যা চলবে আগামী ২৫ ডিসেম্বর মধ্যরাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৭ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত।

২০১৭ সালের ২১ ডিসেম্বর এই সিটিতে সর্বশেষ নির্বাচন হয়েছিল। নির্বাচিত করপোরেশনের প্রথম সভা হয়েছিল ২০১৮ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি। সে মোতাবেক এ সিটির বর্তমান নির্বাচিতদের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি।

ইমদাদ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: