প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ আসাদুজ্জামান

বরগুনা প্রতিনিধি

শিশুসন্তান চুরির অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেছেন স্ত্রী

   
প্রকাশিত: ৯:৫৮ অপরাহ্ণ, ২৫ জানুয়ারি ২০২৩

যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় স্ত্রীকে মারধর করে শিশুসন্তান নিয়ে পালিয়ে যান স্বামী ও শ্বশুর। এ সময় সকালের নাস্তা তৈরিতে ব্যস্ত ছিলেন শিশুটির মা। এ ঘটনায় শিশুসন্তান চুরির অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেছেন স্ত্রী। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ মো. মশিউর রহমান খান মামলাটি গ্রহণ করে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে বরগুনা সদর উপজেলার আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নে দক্ষিণ ইটবাড়ীয়া গ্রামে। আসামিরা হলেন- লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার টামটা গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে রাসেল হোসেন ও তার বাবা খোরশেদ আলম।

জানা যায়, বাদী নুসরাত জাহান ভাবনার সঙ্গে ২০১৮ সালে রাসেল হোসেনের বিয়ে হয়। তাদের তিন বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। বিয়ের পরপরই রাসেল হোসেন ও তার বাবা খোরশেদ আলম ব্যবসা করার জন্য ভাবনার কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছেন। সর্বশেষ ২৩ জানুয়ারি পুনরায় ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। বাদী যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে রাসেল হোসেন উত্তেজিত হয়ে ভাবনাকে কিল-ঘুসি-লাথি মেরে মারাত্মক আহত করেন।

নুসরাত জাহান ভাবনা বলেন, আমার স্বামী যৌতুকের দাবিতে ঘটনার রাতে আমাকে মারধর করার পরে ওই রাতেই আমরা মীমাংসা হয়েছি। আমি রাসেলকে বলেছি- আমার বাবা নেই। কিছুদিন পর সম্পত্তি ভাগ করে এনে বিক্রি করে তোমাকে টাকা দেব।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে আমি ও আমার মা মোর্শেদা আক্তার তাদের জন্য সকালের নাস্তা তৈরি করতে ব্যস্ত থাকি। এই ফাঁকে রাসেল ও আমার শ্বশুর খোরশেদ আলম আমার শিশুসন্তান রাবেয়াকে চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায়। আমি রাসেলের কাছে ফোন করে আমার শিশুসন্তানকে চাইলেও ফেরত দেয়নি। বরগুনা থানায় মামলা করতে গেলে তারা ট্রাইব্যুনালে মামলা করার পরামর্শ দিয়েছেন।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহম্মদ বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ মামলা করতে আসেনি। মামলা করতে আসলে অবশ্যই মামলা নিতাম।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: