প্রচ্ছদ / ভারত / বিস্তারিত

সম্পাদনা: আরাফাত হোসেন রবিন

ডেস্ক এডিটর

স্পর্শকাতর তথ্য তুলে দেওয়ায় সাবেক কূটনীতিকের জেল

২০ মে, ২০১৮ ১৫:২৮:০৫

ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে ভারতের সাবেক কূটনীতিক মাধুরী গুপ্তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দিল্লির একটি আদালত।

শনিবার দিল্লির অতিরিক্ত দায়রা আদালত থেকে সাজা ঘোষণার সময় তার ভূমিকাকে দেশের নিরাপত্তার জন্য গুরুতর হুমকি বলে মন্তব্য করা হয়।

আদালত এর আগে আইএসআইয়ের হাতে স্পর্শকাতর তথ্য তুলে দেয়ার দায়ে তাকে দোষী সাব্যস্ত করেছিল।

দিল্লি আদালতের অতিরিক্ত দায়রা বিচারক সিদ্ধার্থ শর্মা গুপ্তচরবৃত্তি ও আইনে সুরক্ষিত গোপন তথ্য অন্যায়ভাবে পাচারের দায়ে সরকারি গোপনীয়তা রক্ষা আইনের নানা ধারায় তাকে দোষী সাব্যস্ত করেন। আদালত অবশ্য তার জামিন মঞ্জুর করেছে যাতে তিনি উচ্চ আদালতে ওই রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন জানাতে পারেন।

আদালতে অভিযুক্তের পক্ষ থেকে তিনি সিনিয়র নাগরিক, একজন নারী এবং পরিস্থিতির শিকার বলে নরম মনোভাব নেয়ার আবেদন জানানো হয়। কিন্তু পাবলিক প্রসিকিউটর ইরফান আহমদ তার হলফনামার বিরোধিতা করে বলেন, উনি একজন শিক্ষিত নারী এবং গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। তার মতো ব্যক্তির কাছ থেকে এ ধরণের কার্যকলাপে জড়িত থাকার কথা আশা করা যায় না।

মাধুরী গুপ্তা ২০০৭ সাল থেকে ইসলামাবাদে ভারতীয় হাইকমিশনের 'প্রেস অ্যান্ড ইনফরমেশন'-এ দ্বিতীয় সচিব পদে ছিলেন। ২০১০ সালের ২২ এপ্রিল দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল তাকে গ্রেফতার করে। ২০০৮ সাল থেকে তিনি ভারতীয় গোয়েন্দা এজেন্সিগুলোর সন্দেহের তালিকায় ছিলেন। ভারতের অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য তিনি পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছেন।

পুলিশের তথ্য মতে, তিনি ২০০৯ সালের অক্টোবর থেকে ২০১০ সালের এপ্রিলের মধ্যে আইএসআইয়ের হ্যান্ডলারকে ই-মেইল ও বিশেষ ফোনের মাধ্যমে সংবেদনশীল তথ্য দিয়েছিলেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা সূত্রে গণমাধ্যমে প্রকাশ, মাধুরী গুপ্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিদেশ ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, ভারতীয় সেনাবাহিনী ও ভারতীয় হাইকমিশনে কোন কোন অফিসারকে কোথায় নিয়োগ করা হচ্ছে, সে ব্যাপারে ও তাদের আত্মীয়স্বজনদের নানা তথ্যও মাধুরী পাচার করেছেন। সন্ত্রাসবাদ, কাশ্মির ও আফগানিস্তান সংক্রান্ত ভারতের নানা কৌশলগত তথ্যও পাচার করেছেন। পার্সটুডে

বিডি২৪লাইভ/এএইচআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: